Main Menu

সরাইল রণক্ষেত্র পুলিশ ও মহিলাসহ আহত অর্ধশতাধিক

+100%-

মোহাম্মদ মাসুদ: তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার আঁখিতারা গ্রামে দু’গোষ্ঠীর দুই দফা সংঘর্ষে পুলিশ ও মহিলা সহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনাও ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৯ টি টিয়ারসেল ও ৪০ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। গ্রামে এখনো থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় লোকজন জানায়, গত শুক্রবার রাতে আঁখিতারা আরাবিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসার মাহফিলে ওয়াজ করতে নাসিরনগর থেকে একটি প্রাইভেটকার যোগে আসেন মাওলানা মোঃ ছাইদুর রহমান। পার্কিংকরা গাড়িটির গ্লাস ও দরজায় ধরতে গেলে ৩/৪ জন বাচ্চার মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় ছমির মিয়ার গোষ্ঠীর নাসির মিয়ার ছেলে বোরহান (২৫) ছন্দু মৃধার গোষ্ঠীর ইব্রাহিম মিয়ার শিশু পুত্র বিজয় (১০) ও মজনুর ছেলে নাসির উদ্দিন (০৮) কে মারধর করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। শুক্রবার রাতেই তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। গতকাল সকালে উভয় গোষ্ঠীর দুই সহ্স্রাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রথমে আঁখিতারা বাজারে ও পরে গ্রামের পাশের ফসলি জমিতে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। বাজারের বেশ কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও লুটপাট করেছে দাঙ্গাবাজরা। আতঙ্কে গোটা বাজারের দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। এক সময় বাজার সহ আশপাশের এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। দাঙ্গাবাজরা আঁখিতারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ও ভবনের ছাদ ব্যবহার করায় বিদ্যালয়ের ও ক্ষতি হয়েছে। খবর পেয়ে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার চক্রবর্তীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। মৃদু লাঠিপেটা, ৯ টি টিয়ারসেল ও ৪০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হন। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রন করতে গিয়ে সরাইল থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক ফরহাদ আব্বাস, উপ-পরিদর্শক আবদুল হক ও কন্সটেবল জালাল আহত হয়েছেন। সাড়ে তিন ঘন্টা স্থায়ী সংঘর্ষে পুলিশ ও মহিলা সহ উভয় পক্ষের অন্তত: অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। আহতদের সরাইল হাসপাতাল, জেলা সদর হাসপাতাল ও আশপাশের প্রাইভেট কিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার চক্রবর্তী বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares