Main Menu

ঘুষের বিরুদ্ধে যুদ্ধ যার পণ_অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবন

+100%-

খ.ম.হারুনুর রশীদ ঢালী :: পুরো নাম অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবন। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপির ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসন নির্বাচনী এলাকা (কসবা-আখাউড়া) তথা সারা দেশে জনপ্রিয় আইনমন্ত্রীর একান্ত সহকারি সচিব হিসেবে।

ছাত্র জীবন থেকেও তিনি স্ব এলাকায় সৎ ও দক্ষ সংগঠক হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয় ছিলেন ও আছেন।

লোভের সাথে মিতালি করেননি বলে আজ সারা দেশে জনপ্রিয় সুপার স্টার হয়ে সংবাদ পত্রে শিরোনাম হয়েছেন। “ ঘুষ সাধলেই বিপদ” অবৈধ সুবিধা প্রস্তাবকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা,“ ঘুষের কথা বললেই গ্রেফতার ” ইত্যাদি শিরোনামে জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকা সংবাদ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়েছে।

ক্ষমতাসীন সরকারের আইনমন্ত্রীর এপিএস হয়েও তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি গোলমেলে হয়ে পড়েনি। সত্যি বলতে কী, এ পর্যন্ত মার মার, কাট কাট, খাই খাই ব্যবসা বা শব্দর মাঝে তিনি শুরু থেকেই নেই। অনেকেই তার অজান্তে চাকুরি বাণিজ্য করতে গিয়ে জেলে যেতে হয়েছে। বিনা পয়সায় আইনমন্ত্রী বেকারদের চাকুরি দিয়ে এলাকায় ইতিহাস ও ব্যাপক জনপ্রিয়তা সৃষ্টি করেছেন কিন্ত এই বিনা পয়সায় চাকুরির জন্য ঘুষ সাধলেই বিপদ নয় মহাবিপদ।

ঘটনা কসবা-আখাউড়ায় শেষ নয়, আইনমন্ত্রীর একান্ত সহকারি সচিব অ্যাডভোকেট রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবনকে অবৈধ সুবিধা প্রদানের প্রস্তাব দিয়েছিলেন মেহেপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নাজির। আর এই অবৈধ সুবিধার প্রস্তাবকারীর বিরুদ্ধে আইগত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আইন সচিবেরর কাছে আবেদন করে রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবন। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৩১ জানুয়ারি ২০১৮ইং মেহেপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নাজির আসাদুজ্জামান এই অবৈধ সুবিধা প্রদানের প্রস্তাব করে। রবিবার এর আইনগত প্রতিকার চেয়ে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হকের কাছে আবেদন করেছেন রাশেদুল কাওসার ভুঁইয়া জীবন।

জীবন বলেন, গত ৩১ জানুয়ারি বেলা পৌনে ১২টায় আমাকে টেলিফোন করেন আসাদুজ্জামান। তিনি বলেনম একজন লোক স্যারের (চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট)সহি জাল করাতে চাকুরিচ্যুত হয়েছে। এখানে তার আপিল করতে হলে জেলা জজ সাহেবের কাছে হবে না। তার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ সচিব স্যারের কাছে করতে হবে। জানেন তো একটি চাকুরির ব্যাপার। তার এই কাজটা করে দেবেন,আপনাকে আমি সুবিধা করে দেব।

জীবন এই প্রতিবেদককে বলেন, এই কথায় আমি ব্যথিত বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ। আর তার কথাগুলো অসাদচরনের সামিল। তাই তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সবিনয় অনুরোধ করেছি।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares