Main Menu

কসবা রেল দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে ৫টি তদন্ত কমিটিচালক, সহকারী ও গার্ড সাসপেন্ড

+100%-

গত সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে ভয়াবহ রেল দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পাঁচটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পরপরই রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এ ছাড়া বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে পৃথক দু’টি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। এ ছাড়া রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীন রেলপথ পরিদর্শকের নেতৃত্বে একটি এবং ব্রাহ্মহ্মহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। এ দিকে দুর্ঘটনাকবলিত এক্সপ্রেস ট্রেনের চালক, সহকারী চালক এবং গার্ডকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো: শরীফুল আলমের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (আইন ও ভূমি) মো: রফিকুল ইসলামকে আহবায়ক করে চার সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যরা হচ্ছেন, প্রধান সঙ্কেত ও টেলিযোগাযোগ কর্মকর্তা মু. আবুল কালাম, বাংলাদেশ রেলওয়ের যুগ্ম মহাপরিচালক (অপারেশন্স) রাশিদা সুলতানা গনি এবং রেলপথ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মীর আলমগীর হোসেন। তাদেরকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
এ দিকে বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে দু’টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। চিফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট (পূর্ব) মো: নাজমুল ইসলামকে আহবায়ক করে চার সদস্যবিশিষ্ট কমিটির অপর সদস্যরা হলেনÑ চিফ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার (পূর্ব) মো: মিজানুর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী (পূর্ব) মো: সুবক্তগীন এবং চিফ সিগন্যাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার (পূর্ব) অসীম কুমার তালুকদার। এই কমিটিকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়েছে। অপর দিকে বিভাগীয় কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির প্রধান করা হয়েছে ট্রান্সপোর্ট অফিসার (চট্টগ্রাম) মো: নাসির উদ্দিনকে। অপর সদস্যরা হচ্ছেনÑ জাহিদ আরেফিন তন্ময়, (বিভাগীয় সিগন্যাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার, চট্টগ্রাম) মো: হামিদুর রহমান, (বিভাগীয় প্রকৌশলী-১, চট্টগ্রাম) ফয়েজ আহম্মদ খান (বিভাগীয় মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার/লোকো, চট্টগ্রাম) ও ফাতেমা বেগম (বিভাগীয় মেডিক্যাল অফিসার চট্টগ্রাম)। গঠিত কমিটিকে দুই দিনের মধ্যে প্রতিবেদন পেশ করতে হবে।
এ দিকে দুর্ঘটনার পর তূর্ণা নিশিথা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকো মাস্টার তাছের উদ্দিন, সহকারী লোকো মাস্টার অপু দে এবং ওয়ার্কিং গার্ড আব্দুর রহমানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত (সাসপেন্ড) করা হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares