Main Menu

সরাইল হাসপাতালে ৮ বছর পর অ্যাম্বুলেন্স!

+100%-

মোহাম্মদ মাসুদ, সরাইল ॥ দীর্ঘ ৮ বছর পর সরাইল হাসপাতালে রোগী বহনকারী অ্যাম্বুলেন্স! রোগী ও কর্মকর্ত কর্মচারীদের মনে দারুন স্বস্থ্যি থাকলেও অনেকের কাছে অবিশ্বাস্যই ছিল বিষয়টি। অবশেষে স্থানীয় সংসদ সদস্যের চেষ্টায় একটি অ্যাম্বুলেন্সের দেখা পেল সরাইলবাসী। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সাল থেকেই লক্কর জক্কর অবস্থায় চলছে সরাইল হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্সটি। বেশীর ভাগ সময় হয়ে যেত বিকল। কোন রকমে জোড়াতালি দিয়ে মেরামত করার কিছুদিন পরই আবার বিকল। এভাবেই চলছে ৫-৬ বছর।

২০০৯ সাল থেকে একেবারেই অকেজো হয়ে পড়ে আছে এম্বোলেন্সটি। বিত্তশালীরা জেলা শহর থেকে প্রাইভেট এম্বোলেন্স দিয়ে রোগী নিচ্ছেন জেলা সদর ও ঢাকায়। কিন্তু গ্রামগঞ্জ থেকে আসা অসহায় দরিদ্র রোগীদের দূর্ভোগের শেষ নেই। অনেক নাকানি ছুবানি খেয়ে তারা রোগী বহন করছেন গত ৯ বছর ধরে। এম্বোলেন্স চেয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অগণিত পত্র লিখেছেন উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে। মন গলেনি তাদের।

অবশেষে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও হাসপাতাল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা সংসদে একাধিকবার এম্বোলেন্স চেয়ে প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। এমপি’র আবেদনে সাড়া দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সরাইল হাসপাতালকে উন্নতমানের অত্যাধুনিক একটি অ্যাম্বুলেন্স দিয়েছেন। গতকাল রোববার আনুষ্ঠানিক ভাবে ফিতা কেটে এম্বোলেন্সটির উদ্ভোধন করেছেন এমপি মৃধা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আইনুল ইসলাম, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (সরাইল সার্কেল) মো. মনিরুজ্জামান ফকির ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. শের আলম মিয়া।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares