Main Menu

সন্ত্রাসী ছেলের হাতে গুরুতর আহত বৃদ্ধ বাবা ও মা

+100%-

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের নরসিংসার গ্রামের উত্তরপাড়ায় সন্ত্রাসী ছেলের হামলায গুরুতর আহত হয়েছেন বৃদ্ধ বাবা ও মা।
গতকাল বৃহস্প্রতিবার আনুমানিক রাত ৮টার দিকে বাদীর নিজ বাড়ীর মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।
এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, নুরুল ইসলাম মিয়ার (৭০) এক জন হত দারিদ্র কৃষক। তার পাচঁ ছেলের মধ্যে দুই ছেলে খলিল মিয়া ও আলাউদ্দিন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, ক্রিমিনাল, পর সম্পদলোভী ও টাকা আত্ব সাৎকারী। তারা বাবা ও মায়ের কোন কথা বার্তা শুনে না। তারা বাবার সম্পত্তি লিখে নেওয়ার জন্য প্রতিদিনই বাবার সাথে ঝগড়া ঝাটি করতে থাকে। গত বৃহস্প্রতিবারও তারা একই ভাবে বাবাকে তার একমাত্র বসত বাড়িটি লিখে দিতে চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু বাবা একমাত্র বস্তবাড়িটি তাদেরকে লিখে দিতে অস্বীকার করায় হাতে দা ও লাটি দিয়ে বাবাকে  প্রচন্ডভাবে আঘাত করতে থাকে। এ সময় নুরুল ইসলাম মিয়ার স্ত্রী মোছাঃ হাজেরা খাতুন (৬০) তার স্বামীকে বাচাতে আসলে তাকেও বেধর মারধর করে গুরুতর আহত করে ফেলে পাষন্ড ছেলেরা।

এ ব্যাপারে নুরুল মিয়া জানান, আমার ছেলে কুলাঙ্কার খলিল ও আলাউদ্দিন আমার একমাত্র বসত বাড়ি লিখে নেওয়ার জন্য আমাকে চাপ সৃষ্টি করে । আমি আমার অপর তিন সন্তান ও বৃদ্ধ বয়সে আমার বেচে থাকার একমাত্র সম্ভল টুকু সন্ত্রাসী এই দুই ছেলেকে লিখে দিতে অস্বীকার করি। এতে তারা প্রচন্ড রাগান্নিত হয়ে আমার ওপর হামলা করে। এ সময় আমার স্ত্রী আমাকে বাচাতে আসলে তারা তার উপরও আমলা করে এই দুস্কৃতকারীরা।

মা হাজেরা খাতুন  বলেন, ইমুন যদি জানতাম এই পুত আমি পেটে দরতাম না বলে ফেলফেলিয়ে কেদে উঠেন । এখন নিজের জানের নিরাপত্তা জন্য আইনের আশ্রয় নিয়েছি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার সাব এস আই আরিফ আলী জানান, আমরা এ ব্যাপারে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করব।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares