Main Menu

ঢাবির ভর্তি যুদ্ধ: নতুন ওয়েবসাইটে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু

+100%-
সংবাদদাতা : পরিবর্তিত ওয়েবসাইটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার কার্যক্রম বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে শুরু হচ্ছে। ঢাবির স্নাতক (সম্মান) ভর্তির নতুন ওয়েবসাইট: (http://admission.eis.du.ac.bd)। এর মাধ্যমেই এবারের ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন হবে বলে কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিস সূত্রে জানা গেছে। দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক প্রশাসনিক ভবনের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে (কক্ষ নং-২১৪)  আনুষ্ঠানিকভাবে এবারের ভর্তি কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভবন সূত্রে জানা গেছে, বিগত তিন বছরের মত এবারও ভর্তি প্রক্রিয়ার সমস্ত কার্যক্রম অনলাইনে সম্পন্ন করা হবে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টা পর্যন্ত অনলাইনে প্রাথমিক আবেদন ফি জমা দেওয়ার পে-স্লিপ সংগ্রহ করা যাবে। ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অনলাইন থেকে পে-স্লিপ ডাউনলোড করে  রাষ্ট্রায়ত্ব (সোনালী, রুপালী, জনতা, অগ্রণী) যে কোনো ব্যাংকে আবেদনপত্রের আবেদন করার জন্য নির্ধারিত টাকা জমা দিতে হবে। আবেদনকারীকে অবশ্যই ১০ অক্টোবরের মধ্যে নিজের  ছবি আপলোড করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। অন্যথায় তার আবেদনটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল হয়ে যাবে। প্রশাসনিক ভবন সূত্রে আরও জানা গেছে, যেসব শিক্ষার্থী ২০১৩ ও ২০১২ সালে উচ্চ মাধ্যমিক অথবা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে কেবল তারাই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে প্রার্থীকে অবশ্যই ২০০৮ বা তার পরবর্তী সালে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। অন্যদিকে, ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া কোনো শিক্ষার্থী বিভাগ পরিবর্তনের জন্য এবারের ভর্তি-পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চাইলে তাকে সংশ্লিষ্ট বিভাগের চেয়ারম্যান বা ইনস্টিটিউটের পরিচালকের কাছ থেকে ভর্তি-পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য লিখিত অনুমতি নিতে হবে। ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে পাঁচটি ইউনিটের মাধ্যমে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। ইউনিটগুলো হচ্ছে ক-ইউনিট (বিজ্ঞান), খ-ইউনিট (কলা অনুষদ), গ- ইউনিট (ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ), ঘ-ইউনিট (সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ) এবং চ-ইউনিট (চারুকলা অনুষদ)। উচ্চমাধ্যমিক পাশ করা বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক-ইউনিট, মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীরা খ ইউনিট, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীরা গ-ইউনিটের মাধ্যমে পরীক্ষা দিয়ে নিজ নিজ বিভাগের বিষয়ে ভর্তির সুযোগ পাবে। তবে কেউ যদি উচ্চ মাধ্যমিকে পঠিত বিষয়গুলোতে উচ্চ শিক্ষা নিতে আগ্রহী না থাকে তবে তাকে ঘ-ইউনিটের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। ঘ- ইউনিটের মাধ্যমে পরীক্ষা দিলে নিজ নিজ অনুষদের বিষয়গুলো ছাড়া মেধাতালিকা অনুযায়ী অন্য যে কোনো অনুষদের বিষয়ে ভর্তি হওয়া যাবে। আবেদনের যোগ্যতা: উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা ক ইউনিটের মাধ্যমে মানবিক বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা খ-ইউনিটের মাধ্যমে এবং ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীদের গ-ইউনিটের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। এক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয় ছাড়া মোট জিপিএ ক-ইউনিটের জন্য ৮, খ-ইউনিটের জন্য ৭ এবং গ-ইউনিটের জন্য ৭.৫ থাকতে হবে। তবে চ-ইউনিটে যেকোনো বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে। এক্ষেত্রে তাদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয় ছাড়া মোট জিপিএ’র প্রয়োজন হবে ৬.৫। ঘ-ইউনিটের মাধ্যমে সব বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরাই পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে এক্ষেত্রে নিজ নিজ অনুষদের ইউনিটে আবেদনের জন্য ন্যূনতম জিপিএ’র শর্ত পূরণ করলে তবেই ঘ-ইউনিটে আবেদনের যোগ্য বিবেচিত হবে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী ১ নভেম্বর ঘ-ইউনিট, ১৫ নভেম্বর গ-ইউনিট, ২২ নভেম্বর ক-ইউনিট এবং ২৩ নভেম্বর চ-ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে অনিবার্য কারণে পরীক্ষার সময় স‍ূচি পরিবর্তন হতে পারে। এছাড়া নিজ নিজ অনুষদে আবেদনের বিস্তারিত তথ্য ঢাবির স্নাতক(সম্মান) ভর্তির ওয়েব সাইট: (http://admission.eis.du.ac.bd) এ পাওয়া যাবে। উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares