Main Menu

নাসিরনগরে সংসদ নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করেছেন জাতীয় পার্টি

+100%-

মোঃ আব্দুল হান্নান, নাসিরনগর প্রতিনিধিঃ

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ৫ জানুয়ারি রোজ রবিবার সম্পন্ন হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসন নাসিরনগরের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচন পরবর্তী সময়ে নির্বাচনকে গিরে এখন চলছে চুল ছেড়া বিশ্লেষণ। এক সময়ে জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসেবে খ্যাত ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ নাসিরনগর এ আসন থেকে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির দুই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করলেও নির্বাচন বর্জন করেছে ১৮ দল। এ আসনে নারী পুরুষ মিলে মোট ১,৮৯,১২৪ জন ভোটার এবং ৭৪টি  ভোট কেন্দ্র থাকলেও মোট ভোট আদায় হয়েছে ৭৮,২৫৪টি। এর মাঝে আওয়ামীলীগ প্রার্থী এড: ছায়েদুল হক নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৯,৫৭৩ টি এবং জাতীয় পার্টির প্রাথী রেজোওয়ান আহমেদ লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৯১০টি ভোট। মোট কাস্টিং ভোটের হার দাড়িয়েছে ৪১.৯০%। জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজোওয়ান আহমেদ অবশ্য গতকাল বিকেলে সহকারী রিটার্নিং অফিসার উপজেলা নির্বাহী বরাবরে এক লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে নির্বাচনী ফলাফল প্রত্যাখান করেছেন। তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেছেন স্বশরীরে বিভিন্ন এলাকায় ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে দেখতে পান আওয়ামীলীগের ক্যাডার বাহিনী ভোট কেন্দ্র দখল করে একতরফা ভোট দিচ্ছে। জাতীয় পার্টির এজেন্ট ও ভোটারদের মারপিট করে কেন্দ্র থেকে বের করে দিচ্ছে। এ সমস্ত বিষয় কেন্দ্রে নিয়োজিত আইনশৃংখলা বাহিনীকে অবহিত করলেও তারা থাকেন নিরব। তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন চাতলপাড় ইউনিয়নের ফুলকারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামীলীগের সন্ত্রাসীরা একতরফা বল প্রয়োগ করে ভোট কেন্দ্র দখল করে। ঐ সময়ে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা বাধা দিলে তাদেরকে মারপিট শুরু করে এমনকি আইন প্রয়োগকারী বাহিনীও তাদের উপর চড়াও হয়। এ সমস্ত কারণে তিনি লিখিত ভাবে নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান করেন। সরজমিন সকাল সাড়ে নয় ঘটিকায় সাংবাদিক পর্যবেক্ষক দলের সাথে আশুরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে এখানে মাত্র একজন পুরুষ ও দুইজন মহিলা ভোটার রয়েছে। এড: ছায়েদুল হক এ পর্যন্ত পর পর পাঁচ বার নির্বাচন করলেও প্রথম তিন নির্বাচনে উক্ত কেন্দ্র থেকে আড়াই- তিনশত ভোট পেয়েছেন। চতুর্থ নির্বাচনে নশত পঞ্চাশ ভোট এবং পঞ্চম নির্বাচনে ষোলশত সাত ভোট পেয়েছেন। এ কেন্দ্র মোট ভোটার সংখ্যা ৩৩৯৯ টি হলেও ভোট আদায় হয়েছে ১৮২৫টি, নৌকা পেয়েছে ১৬০৭ ও লাঙ্গল পেয়েছে ২১১ টি। সাড়ে দশ ঘটিকায় শ্রীঘর উত্তর এফ আই ভিডিবি কেন্দ্রে গিয়ে আধা ঘন্টা অপেক্ষা করে তিনজন মহিলা ও দুইজন পুরুষ ভোটারকে দেখতে পাওয়া যায়। সকাল এগার ঘটিকায় বুড়িশ্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে এখানে ১০-১২ জন হিন্দু মহিলা ভোটার ভোট প্রদান করছেন। দুপুর বার ঘটিকায় তিলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে এখানে ২০-২৫ জন হিন্দু মহিলা ও পুরুষ ভোটার ভোট প্রদান করছেন। বেলা দেড় ঘটিকায় লক্ষীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে এখানে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও সেখানকার দায়িত্বরতরা জানান ওই কেন্দ্রে প্রায় বারশত ভোট কাস্টিং হয়েছে। জন হিন্দু মহিলা ও পুরুষ ভোটার ভোট প্রদান করছেন। শুক্রবার সিলেটের  কাজির বাজার সেতু নির্মাণ কাজ পরিদর্শন শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত অবশ্য সাংবাদিকদের বলেছেন সমজোতা হলেই আবার নির্বাচন। তিনি বলেন আন্দোলনে ব্যর্থ বিএনপি নিয়ম রক্ষার নির্বাচনে আওয়ামীলীগ।দেশবাসী নির্বাচন প্রত্যাখান করলেও ঊনিশ প্রাণের বিনিময়ে সম্পন্ন হয়েছে জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৪। বাংলাদেশের এই নির্বাচন সমলোচনায় মূখর হয়ে উঠেছে বিশ্ব মিডিয়া। নির্বাচন করতে পারায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে আওয়ামীলীগ। অনেকেই আবার এ নির্বাচনকে কাঠাল ভাঙ্গার মতবাদ দিয়েছেন। বেশ কয়টি দল নির্বাচনে না আসায় ভোটার উপস্থিতি কম বলে মন্তব্য সিইসির।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares