Main Menu

ইউপি নির্বাচন:: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২ প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে আহত ৪০

+100%-
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছে।
সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়নের বুধল ও মালিহাতা গ্রামের লোকজনদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৫০-৬০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বুধল ইউপির চেয়ারম্যান। তবে পুলিশের দাবি, সংঘর্ষের ঘটনায় ১৫-২০ জন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি এখন তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আহতদের স্থানীয় ও জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত কয়েকজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলেও জানা গেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দা সূত্রে জানা যায়, গতকাল রোববার বুধল ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনে ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে মাইক প্রতীক নিয়ে শিউলী আক্তার ও তালগাছ প্রতীক নিয়ে রওশন আরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনের ফলাফলে মাইক প্রতীকে শিউলি আক্তার জয়লাভ করেন। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গতকালই ভোটকেন্দ্রে তাঁদের সমর্থকদের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে ওই দিন বিকেলেও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে শিউলি ও রওশন আরার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

পুলিশ জানায়, গতকালের ঘটনার জের ধরে আজ সকাল ৮টার দিকে উভয় পক্ষ আবার অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ইউনিয়নের বুধল ও মালিহাতা গ্রামের অন্তত ১০টি পয়েন্টে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ঘরবাড়ি ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে। পরে দুপুর দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ গিয়ে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বুধল ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল হক বলেন, নির্বাচনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৪০  জন আহত হয়েছে। এখন এলাকায় পুলিশ অবস্থান করছে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনূর রহমান বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় ১৫-২০ আহত হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। ওই এলাকার পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলেও জানান তিনি।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares