Main Menu

The Beast, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের গাড়ি, বিস্ময়কর সব সুবিধায় ভরপুর

+100%-

এটি প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ক্যাডিল্যাক গাড়ি, এর চেয়ে আরও অনেক উন্নত প্রযুক্তি এবং আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকছে ট্রাম্পের গাড়িতে।

এটি প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ক্যাডিল্যাক গাড়ি, এর চেয়ে আরও অনেক উন্নত প্রযুক্তি এবং আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকছে ট্রাম্পের গাড়িতে।

ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত আমেরিকার নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবার তার রাষ্ট্রীয় গাড়ির জন্য নতুন সমালোচনার মুখে পড়তে যাচ্ছেন। বৃটিশ পত্রিকা ডেইলি মেইল এর রিপোর্টে জানা যায়, বিশ্বখ্যাত মার্কিন গাড়ি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান জেনারেল মোটরস আগামী বছরের জানুয়ারিতে ট্রাম্পের হোয়াইট হাউসে প্রবেশের আগেই তার রাষ্ট্রীয় গাড়ি তৈরি করে দেবে। আমেরিকার ৪৫তম প্রেসিডেন্টকে বহনের জন্য ব্যবহৃত এই গাড়ির নাম হবে The Beast। আরবি নাম আশ শাবাহ ।

ট্রাম্পের নিরাপত্তায় তৈরি গাড়িটি প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ক্যাডিল্যাক গাড়ির চেয়েও অনেক বেশি বৈশিষ্ট্যপূর্ণ হবে। এতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। গাড়ির বডি হবে, ওবামার বর্তমান গাড়ির মতোই কালো ও সিলভার রঙের।

ট্রাম্পের এই গাড়িটি হবে প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে সাধারণ গাড়ি থেকে অনেক আলাদা। এতে উন্নত মডেলের যন্ত্রাংশ সংযোজন করা হবে। গাড়ির খরচ ১৫ মিলিয়ন ডলার। আমেরিকান টেলিভিশন নেটওয়ার্ক ফক্স নিউজ জানায়, গাড়িটি তৈরিতে মোট ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ হবে। গাড়ি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান জেনারেল মোটরস দীর্ঘ তিন দশক ধরে আমেরিকার প্রেসিডেন্টের গাড়ি প্রস্তুত করার দায়িত্ব পালন করে আসছে। সে হিসেবে ট্রাম্পের গাড়িটিও প্রস্তুত করার দায়িত্ব পায় প্রতিষ্ঠানটি। ইতিমধ্যে ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ওই প্রতিষ্ঠানকে দেওয়াও হয়েছে গাড়ি তৈরির কাজ শুরু করতে। প্রেসিডেন্টের যাতায়াতের জন্য এবং যাতায়াতকালীন তার নিরাপত্তার জন্য হোয়াইট হাউসের মালিকানায় মোট ১২টি গাড়ি রয়েছে। প্রতিটি গাড়ির মূল্য প্রায় ১.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এসব গাড়ি খুবই উন্নত প্রযুক্তিতে তৈরি। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ব্যবহৃত গাড়ির ওজনও প্রায় ৮ টন। অত্যাধুনিক সমস্ত সুযোগ-সবিধা রয়েছে এতে।

ট্রাম্পের গাড়িটি হবে আরও উন্নত ও বিলাসবহুল। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নতুন গাড়ি থাকবে সম্পূর্ণ আবৃত। মার্কিন মিডিয়া বলছে, এটি হবে সাধারণ গাড়ি থেকে ভিন্ন ধরনের। ট্রাম্পের গাড়িতে ধাতুর প্রলেপ থাকবে। তার দরজাগুলো হবে প্রায় ৮ ইঞ্চি মোটা। প্রতিটি দরজার ওজন হবে বোয়িং ৭৪৭ বিমানের দরজার সমান। গাড়িটি বাতাসের বিষক্রিয়া প্রতিরোধ করতে পারবে। গাড়ির বাইরের আবহাওয়া বিষাক্ত হয়ে গেলে গাড়ির ভেতরে তাজা অক্সিজেন প্রদান করার পূর্ণ ব্যবস্থা থাকবে। প্রয়োজনে টোল ইত্যাদি পরিশোধ করার জন্য ড্রাইভারের পাশের জানালা ছাড়া বাকি সব জানালাই থাকবে পূর্ণ বন্ধ।

গাড়িটি হবে বুলেট-প্রুফ। কোনো বিস্ফোরক এতে প্রভাব ফেলতে পারবে না। ট্রাম্পের গাড়ির জ্বালানি ট্যাংককেও armor plating করা হবে। এটি একটি বিশেষ ধরনের ফেনা, যা সরাসরি লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হলেও বিস্ফোরিত হবে না। গাড়িটিতে থাকবে ৯টি সর্বোচ্চ মানের ক্যামেরা। তাছাড়া গাড়িটিতে GPS ট্র্যাকিং এবং স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন সিস্টেমও থাকবে। যাতে যে কোনো অবস্থায় বাইরের জগতের সঙ্গে যোগাযোগ নিশ্চিত করা যায়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের রক্তের গ্রুপের সঙ্গে মিল রেখে দুই ব্যাগ রক্তও রাখা হবে গাড়িতে। আরও থাকবে আগুন নেভানোর সমস্ত যন্ত্র, অস্ত্র, নাইট ভিশন চশমা, কাঁদানে গ্যাস সরঞ্জাম। রাসায়নিক ও জৈবিক আক্রমণকে প্রতিহত করার সব ব্যবস্থাও থাকছে। সূত্র : আল-আরাবিয়া






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares