Main Menu

কসবায় এক দোকানীর কাছে চাঁদা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে দোকানে তালা দেওয়ার চেষ্টা, থানায় অভিযোগ দায়ের

+100%-

খ.ম.হারুনুর রশীদ ঢালী, কসবা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলা কসবা পৌরসুপার মার্কেট জেলা পরিষদের ৬নং দোকান মালিক মোঃ দেলোয়ার হোসেনের কাছে একই এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে সদ্য সাউদ আফ্রিকা  থেকে ছুটি আসা মোঃ সমুন মিয়া ও মিজানুর রহমান ।

তারা তাদের সঙ্গীয় ১০/১৫জন সংঘবদ্ধ একদল লোক  ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে দোকানীসহ তার ভাই আনোয়ারকে মারধর করে মোবাইলসহ নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং এক পর্যায়ে চাঁদা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে উক্ত দোকানে সংঘবদ্ধ চক্রটি তালা দেওয়ার চেষ্টা চালায়। দোকানী দেলোয়ারের চিৎকারে লোকজন দৌড়ে আসার ফলে চাঁদাবাজরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় বলে দোকানী দেলোয়ারসহ অন্যান্যরা জানান।

ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৭ এপ্রিল রোববার দুপুর আনুমানিক সাড়ে বারটায়।  

এই ব্যাপারে দোকানী মোঃ দেলোয়ার হোসেন পিতা মৃত-আবুল হোসেন সাং- দক্ষিণ কসবা,হালে কসবা পৌরসুপার মার্কেট জেলা পরিষদের ৬নং দোকান মালিক বাদী হয়ে গত ২৮ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যায় মোঃ সুমন মিয়া(২৫) পিতা-আব্দুল লতিফ,মোঃ মিজানুর রহমান(৩০) পিতা-আব্দু রশীদ,সাং-কসবা সদর কাজী বাড়িসহ আরো ১০/১৫জন কে আসামী করে কসবা থানার চলতি দায়িত্ব অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত)মোঃ মফিজুল ইসলাম ভুইয়ার কাছে একটি এজাহার প্রদান করেন।

থানায় দায়ের করা মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায় যে, আব্দুল লতিফ (৬৮) পিতা মৃতু- আলী আহাম্মদ সাং-কাজী বাড়ি কসবা বাদী হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কসবা উপজেলা উর্দ্ধন সহকারী জজ আদালতে জেলা পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা,কসবা পৌরসভা পক্ষে পৌর মেয়র সহ দোকানী দেলোয়ার হোসেনকে বিবাদী করে একটি দেওয়ানী মোকদ্দমা নং-১৬/২০১৪ইং দায়ের করেন।

অবশেষে উপরোক্ত মামলার বাদী আব্দুল লতিফ স্ব ইচ্ছা ও স্ব জ্ঞানে তার দায়েরকৃত দেওয়ানী মোকদ্দমা মামলাটি আদালতে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে বলেই আদালত থেকে গত ধার্য্য তারিখ ১৬-০৪-২০১৪ইং তারিখে এক পিটিশনের মাধ্যমে প্রত্যাহার করে নেন।

কিন্ত প্রত্যাহারের পর সুপরিকল্পিত ভাবে আব্দুল লতিফের ছেলে সদ্য আসা প্রবাসী সমুন মিয়া তার ভাড়া করা একদল সস্ত্রাসীবাহিনী নিয়ে দোকানী দেলোয়ার ও তার ভাই আনোয়ার হোসেনর উপর হামলা চালায়।হামলাকারীরা মারধর করে একটি মোবাইলসহ নগদ ৩৫হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

অভিযোগ সূত্রে আরো জানা যায়, বিবাদী সুমনের বাবা আব্দুল লতিফ দোকানের মামলা মোকাদ্দোমা পরাজিত হওয়ার জেরকে  কেন্দ্র করেই চাঁদাদাবীর মূল কারণ।

এই ঘটনার পর থেকে বাদী মোঃ দেলোয়ার হোসেন ও ভাই আনোয়ার হোসেন সহ তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপদহীনতায় ভোগছে বলে গতকাল মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় সাংবাদিকদেরকে জানান।

এই দিকে কসবা থানার চলতি দায়িত্ব অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত)মোঃ মফিজুল ইসলাম ভুইয়ার সাথে যোগাযোগ করিলে তিনি  জানান  মোঃ দেলোয়ার হোসেন সন্ধ্যায় এই বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ প্রদান করেছেন। তবে কসবা থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ মিজানুর রহমান চোধুরী আসলেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে তিনি এই কথা জানান।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কসবা সদরে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে বাজারের লোকজন জানান।

কসবা বাজারের সচেতন ব্যবসায়ীরা জানান সদ্য প্রবাস থেকে ছুটি আসা সুমন মিয়া ও তার চাচাতো ভাই প্রবাসী মিজানুর রহমান যে কোনো অঘটন ঘটিয়ে বিদেশে পাড়ি দিতে পারবে বলে ধারণ করছেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares