Main Menu

আশুগঞ্জ ফিরোজ মিয়া কলেজের শিক্ষার্থীদের মিছিল-সড়ক অবরোধ ॥ কর্মবিরতি স্থগিত

+100%-

প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ ফিরোজ মিয়া কলেজের ৫৪জন শিক্ষক-কর্মচারীর সরকারি বেতন ভাতা বন্ধ, শিক্ষক-কর্মচারীদের সাথে অশোভন আচরন করার প্রতিবাদে শিক্ষক-কর্মচারীদের চলমান কর্মবিরতির ৩য় দিন গতকাল শনিবার পালিত হয়েছে। শিক্ষক-কর্মচারীদের আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে গতকাল মিছিল ও সড়ক অবরোধ করেছে কলেজের শিক্ষার্থীরা। এদিকে উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন, সুশীল সমাজ ও অভিভাবকেরা শিক্ষক-কর্মচারিদের সাথে মতবিনিময় করে আগামী শনিবার পর্যন্ত কর্মসূচী স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেন।
কর্মবিরতির তৃতীয় দিনে গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় কলেজের শিক্ষার্থীরা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও তার পবিরারের সদস্যদের বিরুদ্ধে মিছিল ও আশুগঞ্জ-তালশহর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক অরোধ করে। পুলিশ শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ তুলে নেয়ার অনুরোধ ও ঘটনার প্রকৃত তদন্ত ও দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা। পরে পরিস্থিতি নিরসন ও শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে শিক্ষক-কর্মচারিদের সাথে সুশীল সমাজ, অভিভাবক ও উপজেলা প্রশাসন মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় শিক্ষক-কর্মচারিদের ন্যায্য দাবি আদায়ে তারা ভূমিকা রাখবেন-এরকম আশ্বাস দিলে শিক্ষক-কর্মচারিরা ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার পর্যন্ত কর্মবিরতি স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেন।
অধ্য মোঃ শাহজাহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম ফারুক, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, আশুগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মোবারক হোসেন, আড়াইসিধা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মমিন মিয়া, চর-চারতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আইয়ুব খান, লালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মোর্শেদ মাষ্টার, উপজেলা বিএনপি‘র সভাপতি মোঃ জহিরুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ডাঃ মোবারক আলী চৌধুরী,  জেলা চাতালকল মালিক সমিতির সভাপতি মোঃ সাজু খা, উপজেলা বিএনপি‘র সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, শহর শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম হোসেন ইপ্টি, উপজেলা সুজনের সভাপতি মোঃ মিজানুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোশারফ মুন্সী, উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা মোঃ ইলিয়াছ ও ব্যবসায়ী মোঃ বাবুল মিয়া।
সভায় বক্তারা কলেজ প্রতিষ্ঠাতা ফিরোজ মিয়ার অবৈধ কর্মকান্ড বন্ধ ও শিক্ষকদের ন্যায্য দাবি আদায়ে পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধার সাথে আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে শিক্ষক-কর্মচারিরা আগামী ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কর্মবিরতি স্থগিত করেন।  রবিবার থেকে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেন।
উল্লেখ্য, অন্যায়ভাবে কলেজ প্রতিষ্ঠাতা ফিরোজ মিয়া ও তার পরিবারের কয়েক সদস্যের দ্বারা কলেজের শিক্ষক-কর্মচারিদের সরকারি বেতন ভাতা বন্ধ, অশোভন আচরন ও অন্যায় হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে গত বুধবার থেকে কর্মবিরতি শুরু করে শিক্ষক-কর্মচারীরা।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares