Main Menu

ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী শিল্পী

+100%-
প্রতিনিধি:সরাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী শিল্পী (১১)। গতকাল শুক্রবার উপজেলার পানিশ্বর ইউনিয়নের শান্তিনগর (কানিখাই) গ্রামে পুলিশ উপস্থিত হয়ে এ বিয়ে বন্ধ করেছে। পুলিশ আটক করেছে শিল্পীর চাচা আজহার (৩৫) কে। বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে শিল্পী ও তার মা কোহিনুর বেগম। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, শান্তিনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী লুলু মিয়ার শিশু কন্যা শিল্পী বেগম। বিয়ে কি এটাই সে এখনো বুঝে উঠেনি। খালি শরীরে ঘুরাফেরা করে। পিতৃহীন দরিদ্র পরিবারের প্রধান তার মা মোছাঃ কোহিনুর বেগম। তিনি কোন বাঁধাই মানতে নারাজ। বর শিল্পীর আপন খালাত ভাই ফার্নিসার মিস্ত্রি শাহ আলম (২৩)। সে সদর উপজেলার তেলিনগর গ্রামের ইদ্রিছ মিয়ার ছেলে। গতকাল শুক্রবার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। স্থানীয় চেয়ারম্যান ও উপজেলা প্রশাসন থেকে এ বিয়ে বন্ধের জন্য বারবার বলা হয়েছিল। সবকিছু উপেক্ষা করে এ বিয়ে সম্পন্ন করার সকল প্রস্তুতি নিয়েছিলেন শিল্পীর মা কোহিনুর। গতকাল সকালে ইউএনও’র নির্দেশে এ বাল্য বিয়ে বন্ধের জন্য শিল্পীদের বাড়িতে যায় সরাইল থানা পুলিশ। তখন তাদের বাড়িতে বিয়ের কাজ চলছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দ্রুত সটকে পড়ে শিল্পী ও তার মা কোহিনুর বেগম। পুলিশ তখন আজহার মিয়া নামে শিল্পীর এক চাচাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হোসেন বলেন, শিল্পীর বাল্য বিয়ে বন্ধ করার জন্য আমি সর্বাত্বক চেষ্টা করেছি। সকলের সহযোগীতায় বিয়েটা বন্ধ করতে পেরেছি।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares