Main Menu

ছিনতাই দলের গডফাদার-সরাইলে গণধোলাই

+100%-

সিএনজি অটোরিকশা ছিনতাই, চোরাইকৃত গাড়ির নাম পরিবর্তন ও ছিনতাই দলের গডফাদার অভিযোগে আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী এবং চালক ফারুককে আটকের পর গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। আটক মোহাম্মদ আলী জেলার সদর উপজেলার বুধল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। এছাড়াও তিনি এলাকায় নিজেকে শ্রমিক নেতা ও বিভিন্ন নামসর্বস্ব পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে আসছিল। তিনি খাটিহাতা গ্রামের আলী হোসেন মোল্লার পুত্র। গতকাল রোববার তার বিরুদ্ধে সদর উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের মৃত আহাম্মদ আলীর পুত্র কবির হোসেন বাদী হয়ে সরাইল থানায় ছিনতাই মামলা দায়ের করেছে।

গতকাল রোববার দুপুরে সরাইল থানা পুলিশ আটকৃতদের পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে প্রেরণ করেন। ছিনতাইকৃত সিএনজি অটোরিকশাটি পুলিশ উদ্ধার করেছে। এদিকে রোববার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা সদরে শত শত সিএনজি অটোরিকশা-টেম্পু শ্রমিক ও মালিক অভিযুক্ত মোহাম্মদ আলীর দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে মিছিল করেছেন। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের অভিযোগ, বিশ্বরোড এলাকায় একসময়কার ফুটপাতে কলা বিক্রেতা মোহাম্মদ আলী এখন একজন কুখ্যাত ছিনতাই-ডাকাত ও গাড়ি চুর সিন্ডিকেটের সর্দার। সম্প্রতি জেলার বিভিন্ন সড়ক থেকে চালককে অজ্ঞান ও হত্যা করে বেশকিছু সিএনজি অটোরিকশা ছিনতাই হয়েছে। এলাকায় বহু মোটর সাইকেল চুরি হয়েছে। এ সকল অপরাধ কর্মকান্ডের মূল নায়ক মোহাম্মদ আলী। তাকে পুলিশ রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আরো চোরাই গাড়ির সন্ধান পাওয়া যাবে।

এলাকাবাসী ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ ফেব্রুয়ারী রাতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইল উপজেলার কুট্টাপাড়া মোড় এলাকা থেকে সদর উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের কবির হোসেনের “স্মৃতি উছরা পরিবহন” নামে একটি সিএনজি অটোরিকসা ছিনতাই হয়। ছিনতাইকৃত ওই অটোরিকসাটির নাম পরিবর্তন করে আ’লীগ নেতা মোহম্মদ আলী তার পুত্র জিসানের নামে “জিসান পরিবহন” নাম দিয়ে পরিচালনা শুরু করে। গত শনিবার রাত ৮টার দিকে অটোরিকসার মালিক কবির হোসেন বিষয়টি টের পেয়ে নন্দনপুর এলাকায় অটোরিকসা ও এর চালক সহ তাকে আটক করে। পরে উত্তেজিত জনতা গণধোলাই দিয়ে তাদের সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে তুলে দেয়। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রব বলেন, রাতের বেলা আশুগঞ্জ থেকে ফেরার পথে নন্দনপুর এলাকায় মানুষের জটলা দেখে গাড়ি থামিয়ে অটোরিকসা চোর মোহাম্মদ আলীকে গণধোলাইয়ের হাত থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসি। রাতেই আটক দু’জনকে সরাইল থানায় সোপর্দ করা হয়।

বুধল ইউপি সদস্য মোঃ হেলাল মিয়া বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আ’লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী সিএনজি অটোরিকসা ছিনতাই দলের সদস্য। গত জানুয়ারী মাসে এলাকার একটি অটোরিকসা ছিনতাই হলে তাকে ১লাখ ২০ হাজার টাকা দেওয়ার পর সে এটি উদ্ধার করে দেয়। গত ১৫/২০ দিন আগে নিজ গ্রামের একটি অটোরিকসা চুরির দায়ে দেড় লাখ টাকা জরিমানা দেয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সদর উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিশ্বরোড এলাকার একাধিক ব্যবসায়ী বলেন, গত ১০ বছর আগে বিশ্বরোড এলাকায় ফুটপাতে কলা বিক্রি করতো মোহাম্মদ আলী। পরে কলা বিক্রি ছেড়ে হয় টেম্পু চালক। এরপর তাকে আর পেছনে তাকাতে হয়নি। বনে যান শ্রমিক নেতা। এক সময় শ্রমিক নেতা হিসেবে বিশ্বরোড এলাকায় সে ব্যাপক চাঁদাবাজিতে জড়িয়ে পড়ে। পরে প্রভাবশালী ক’জন নেতার সংস্পর্শে এসে বুধল ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক নির্বাচিত হয়। এভাবে ফুটপাতের কলা বিক্রেতা মোহাম্মদ আলী বনে যায় কোটিপতি। খাটিহাতা গ্রামের অনেকে জানান, প্রাইমারী স্কুলের গন্ডি পেরুতে না পারলেও মোহাম্মদ আলী এখন একাধিক জাতীয় পত্রিকার পরিচয়পত্র বহন করে। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, কখনো ভোরের ডাক, আলোর জগত, জাতির আলো, অপরাধ জগতের সাংবাদিক পরিচয়দানকারী মোহাম্মদ আলী এলাকায় বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। তার দাপটে বিশ্বরোড হাইওয়ে পুলিশ অতিষ্ঠ বলে জানা গেছে।

গত দেড় বছর আগে বিশ্বরোড এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের ঘটনায় সংঘটিত সংঘর্ষে তার হাতে থাকা রামদার ছবি বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হলে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। এর পর থেকে এলাকায় রাম দা মোহাম্মদ আলী হিসেবে সে পরিচিত হয়।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে বুধল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে সদর আসনের সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এবং জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মেজর (অবঃ) জহিরুল হক খান বীর প্রতিকের ছবির সাথে তার বিরাট আকৃতির ছবি সম্বলিত চার রঙ্গা পোষ্টার ছেপে জেলা সদর সহ বিশ্বরোড এলাকা ও সরাইলের বিভিন্ন এলাকায় সাটিয়েছে।

এ ব্যাপারে থানা হাজতে থাকা আ’লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। বুধল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক প্রার্থী হওয়ায় আমার প্রতিপক্ষরা আমাকে ফাসিয়ে দিয়েছে। তিনি দাবি করেন উদ্ধারকৃত অটোরিকসাটি চোরাই নয়, এটি তার নিজের কেনা। তিনি এর মালিক।

এ ব্যাপারে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন বলেন, গ্রেপ্তারকৃত মোহাম্মদ আলী অটোরিকসা ছিনতাই দলের একজন সদস্য। তার বিরুদ্ধে চুরি হওয়া অটোরিকসার মালিক কবির হোসেন বাদী হয়ে ছিনতাই মামলা দায়ের করেছেন। তিনি বলেন, ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে মোহাম্মদ আলী ও চালক ফারুককে আদালতে পাঠানো হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares