Main Menu

পরিবেশ, পর্যটন ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে সচেতনতার আহবান জানাতে সাইকেল ভ্রমণকারী ব্রাহ্ম¥নবাড়িয়ায়

+100%-

স্টাফ রিপোর্টার : ২০০৫ সালে অ্যাঞ্জেলা চৌধুরী বাংলাদেশী মেয়েদের মধ্যে সর্ব প্রথম বাই-সাইকেলে ৩৪ জেলা ভ্রমণ করেছিলেন। ছয় বছর সেই সীমা অত থাকার পরে এখন তিনি প্রতি সপ্তাহে ভাঙছেন আর গড়ছেন সেই রেকর্ড। পরিবেশ, পর্যটন এবং মু্িক্তযুদ্ধ এই তিনটি বিষয়ে সচেতন হবার আহবান জানিয়ে তিনিসহ তিন সদস্যের একটি বাই-সাইকেল ভ্রমণকারী দল বর্তমানে খাগড়াছড়িতে অবস্থান করছেন। দেশের ৬৪ জেলা ভ্রমণের উদ্দেশ্যে দলটি ৪ জন সদস্য নিয়ে ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র থেকে গত ২১ অক্টোবর যাত্রা শুরু করে। সেখান থেকে একে একে নারায়নগঞ্জ, নরসিংদী, কিশোরগঞ্জ, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, পাবনা মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ি, কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, চুয়াডাংগা, ঝিনাইদহ, মাগুরা, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, নড়াইল, যশোর, সাতীরা, খুলনা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, ঝালকাঠী, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, চাদঁপুর, লীপুর, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বান্দরবন, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, ফেণী, কুমিল্লা ভ্রমণ শেষে গতকাল (বুধবার) তারা ভ্রমণের ৪২ তম জেলা ব্রাহ্ম¥নবাড়িয়ার সদরে আসেন। ব্রাহ্ম¥নবাড়িয়ায় পৌছে তারা প্রাথমিকভাবে সাাৎ করেন জেলা এনডিসি-এর সাথে এবং ˉ’ানীয় সাংবাদিকদের সাথে। এছাড়াও তারা কসবার আড়াইবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে পরিবেশ, পর্যটন ও মুক্তিযুদ্ধ নিযে মতবিনিময় করেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তারা জেলা প্রশাসক এর সাথে সাাৎ করে ভ্রমণের ৪৩ তম জেলা হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। ব্রাহ্ম¥নবাড়িয়ায় পৌছে তারা সার্কিট হাউজে রাত্রিযাপন করেন জেলা প্রশাসনের সৌজন্যে। পরবর্তীতে তারা যাবেন যথাμমে মৌলভীবাজার, সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুর, বগুড়া, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, রংপুর, নিলফামারী, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাও, দিনাজপুর, জয়পুরহাট, নওগা, চাপাই-নওয়াবগঞ্জ, রাজশাহী এবং ভ্রমণের ৬৪তম জেলা নাটোর। নাটোর থেকে ঢাকা পর্যন্ত গিয়ে ভ্রমণের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি হবে।ভ্রমণকারী দলের সদস্যরা হলেন দিলীপ চৌধুরী (দিপু), আঞ্জেলা চৌধুরী (মেঘ) ও খন্দকার আহম্মদ আলী (সায়েদ)। দলের অন্য সদস্য গোলাম মনজুর ১৫তম জেলা মাগুরা ভ্রমণ শেষে ঢাকায় ফিরে যান। গত ২১ অক্টোবর বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সিইও জনাব আলিমউদ্দীন ভ্রমণ উদ্বোধন করেন। বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সহযোগিতায় এবং মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের সমর্থনে এই ভ্রমণের অর্থায়নে রয়েছে ঢাকার অন্যধারা কনসোর্টিয়াম প্রাইভেট লিমিটেড এবং চট্টগ্রামের দি এডভ্যান্সড বাংলাদেশ লিমিটেড। এছাড়াও ভ্রমণটির সমর্থনে আরো রয়েছে বাংলাদেশ শিক সমিতি ও বিআইটিএফ। প্রতিটি জেলার এক বা একাধিক স্কুল/কলেজে গিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে পরিবেশ, পর্যটন ও মুক্তিযুদ্ধ নিযে মতবিনিময় করার মাধ্যমে সচেতন হবার আহবান জানাচ্ছেন এবং মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর নির্মানের তহবিল গঠনে সকলকে সহায়তা করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন। এছাড়া এক জেলা থেকে আরেক জেলায় ভ্রমণকালে সংগ্রহ করছে অসংখ্য স্থির ও সচল চিত্র (চযড়ঃড় ্ ঠরফবড়)। এগুলো দিয়ে শীঘ্রই উদ্বোধন হবে ওয়েবসাইট যঃঃঢ়://িি.িমষড়নধষপুপষবঃড়ঁৎ.পড়স ২০০৫ সালে নিজ অর্থায়নে বর্তমান দলের তিন সদস্য দিলীপ, অ্যাঞ্জেলা, সায়েদ এবং রানা দেশের ৬৪ জেলা ভ্রমণ শুরু করে। সেবার তাদের দেশব্যপী ভ্রমণ ছিল বাই-সাইকেলে বিশ্বভ্রমণের জন্য নিজেদের শারীরিক, মানসিক সামর্থ্য যাচাই করা। জাতীয় ক্রীড়াবিদ জোবেরা রহমান লিনু সেই ভ্রমনের উদ্ধোধন করেন। প্রায় একমাস সময়ে ৩৪ জেলা ভ্রমণ করার পরে দিলীপ, অ্যাঞ্জেলা ও রানা ঢাকায় ফিরে আসে অভিভাবকদের অনুরোধে। আর তাই এখন দিলীপ চৌধুরী এবং অ্যাঞ্জেলা চৌধুরী দুজনেই অর্জন করছেন নতুন নতুন জেলা। সেবার দিলীপ, অ্যাঞ্জেলা ও রানা ঢাকায় ফিরে যাবার পরে দলের পে সায়েদ বাকী ৩০ জেলা ভ্রমনের মাধ্যমে দলটির ভ্রমণে সফল সমাপ্তি টানে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares