Main Menu

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে ক্রেতাদের নাভিশ্বাস।। আরও দাম বাড়ার আশংকা……

+100%-

শামীম উন বাছির : লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে পেঁয়াজের দাম খানিক বাড়লেও ঈদ পরবর্তী তা অস্বাভাবিকভাবে বেড়েই চলেছে। গত তিনদিনে দেশি ও বিদেশি পেঁয়াজের কেজিতে দাম বেড়েছে ১০ থেকে ১৬ টাকা। আর গত এক মাসে এ পণ্যের দাম বেড়েছে ১৮ টাকা। তাই নিত্য প্রযোজনীয় এ পণ্য কিনতে ক্রেতাদের নাভিশ্বাস উঠছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অস্থির রাজনৈতিক পরিস্থিতি (হরতাল) এবং কয়েকটি সিন্ডিকেট বা চক্র পেঁয়াজের দাম বাড়নোর কারসাজির সঙ্গে জড়িত। বিশেষ করে পেঁয়াজ আমদানিকারকরা এর সঙ্গে সরাসরি জড়িত।

ব্যাবসায়ীরা বলছেন, হরতালে দেশীয় পেঁয়াজের স্টক এবং সরবরাহের মধ্যে সমন্বয় না থাকা এবং গত কয়েক দিন ধরে সীমান্ত বা বর্ডার বন্ধ থাকায় নিত্য প্রযোজনীয় পণ্য পেঁয়াজের দাম বেড়েছে।

এদিকে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বাড়ায় ক্রেতাদের মধ্যে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। ঈদের আগে সব পণ্যের দাম বাড়ে কিন্তু ঈদ পরবর্তী তা কমে আসে। কিন্তু এবার চিত্রটি ঠিক উল্টো। ঈদেকে কেন্দ্র করে পেঁয়াজের দাম খানিকটা বাড়লেও ঈদ পরবর্তী তা হুহু করে বেড়েছে। সব ক্রেতার একটাই প্রশ্ন কী কারণে মাত্র কয়েকদিনে পেঁয়াজের দাম ১৮ টাকা বাড়লো?

শহরের আনন্দ বাজারে একাধিক ক্রেতা আক্ষেপ করে বলেন, ‘রমজানকে কেন্দ্র করে বাজার কেন্দ্রিক সরকারের যে শক্তিশালী মনিটরিং ব্যবস্থা ছিল এখন তা নেই। বাজারের ওপর যথাযথ নজরদারী না থাকায় হঠাৎ করে পণ্যদ্রব্য ও কাঁচামালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে খুচরা ব্যাবসায়ীরা।

এদিকে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) নির্ধারণকৃত গত এক মাসের দৈনিক বাজার দরের তালিকা দেখে জানা যায়, এক মাস আগে অর্থাৎ গত ১৪ জুলাই পেঁয়াজের দাম ছিল ৪২ থেকে ৪৮ টাকা। এ দাম গত ১১ আগস্ট পর্যন্ত একই ছিল। কিন্তু ১২ আগস্ট থেকে পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করা হয় ৫৮ থেকে ৬০ টাকা। আর ১৪ আগস্টে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০ থেকে ৬২ টাকা। তবে খোলাবাজারে টিসিবির নির্ধারণকৃত এ দামের চেয়ে ২/৩ টাকা বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম বাড়ার সত্যতা স্বীকার করেছেন জেলার কাঁচারবাজার ব্যবসায়িরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ি জানান, ‘হঠাৎ করে গত কয়েক দিনে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। ঈদের আগে যেসব আমদানিকারকরা পেঁয়াজ আমদানি করেছেন, তারা ঠিকমত পেঁয়াজ বাজারে সরবরাহ করছেন না। এতে বাজারে পেঁয়াজের চাহিদা বাড়ছে এবং মূলত দাম বাড়ার এটাই অন্যতম কারণ।তার উপর যোগ হয়েছে ভারতের বাজারে পেয়াজের স্বল্পতা। এজন্য আরও দাম বাড়ার আশংকা করছেন ব্যবসায়ীরা।


এদিকে ভারতেও পেঁয়জের দাম বেড়েছে বলে দেশটির বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছ। ভারতে গত কয়েকদিন থেকে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকায়। অনেক ক্ষেত্রে ৮০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ করছে কলকাতা রাজ্যের বাসিন্দারা। এ নিয়ে কলকাতায় বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভেরও খবর পাওয়া গেছে।

বিক্ষোভের কারণে ও ভোক্তা অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গত ১৪ আগস্ট বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে কৃষি বিপণন মন্ত্রণালায় জানায়, সরকারিভাবে রাজ্যের বিভিন্ন ছটি স্থানে ২৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে। এর সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন কৃষি বিপণনমন্ত্রী অরূপ রায়। ফলে কলকাতার বিভিন্ন জেলাতেও ২৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ পাওয়া যাবে বলে জানান তিনি। তবে পেঁয়াজের রপ্তানি ঠেকাতে নূন্যতম মূল্য অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares