Main Menu

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশুগঞ্জে আসছেন। ৫৩ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন

+100%-
প্রতিনিধি : ২০ জুলাই শনিবার বন্দরনগরী আশুগঞ্জে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সফর করবেন। সফরকালে তিনি আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেডের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত ৫৩ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন  একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধনসহ ৫টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। চলতি মেয়াদে আশুগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর এটি দ্বিতীয় সফর। এর আগে ২০১০ সালের ২৩ মে আশুগঞ্জে এক জনসভায় তিনি বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামী শনিবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশুগঞ্জে কয়েকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন এবং ভিত্তিপ্রস্তর স্থপন শেষে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন এলাকায় এক সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখবেন।
আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল আলম এ প্রসঙ্গে জানান, প্রধানমন্ত্রী ৫টি কেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও একটি কেন্দ্র উদ্বোধন করবেন। তিনি জানান, নিজস্ব অর্থায়নে যৌথ জ্বালানিভিত্তিক এই ইউনিটগুলো ২০১৬ সালের মধ্যে উৎপাদনে আসবে।  সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশনের ভেতরে যৌথ জ্বালানিভিত্তিক ৪৫০ (উত্তর) মেগাওয়াট ক্ষমতার ইউনিট উৎপাদনে আসবে ২০১৬ সালের জুলাই, ৪৫০ (দক্ষিণ) মেগাওয়াট ক্ষমতার ইউনিটটি ২০১৫ সালের জুন মাসে, ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার ইউনিটটি ২০১৫ সালের মে মাসে উৎপাদনে আসবে। এছাড়া মডিউলার পাওয়ার প্লান্ট ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ইউনিটটি উৎপাদনে আসবে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে। পাশাপাশি আইপিপি (ইন্ডিপেনডেন্ট পাওয়ার প্রোডিউসার) ভিত্তিতে ৫১ মেগাওয়াট ক্ষমতার আরও একটি কেন্দ্রেরও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হচ্ছে। এছাড়া ৫৩ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি কেন্দ্রও উদ্বোধন করা হবে। সূত্র আরও জানায়, এরই মধ্যে ৪৫০ মেগাওয়াট (দক্ষিণ), ২২৫ মেগাওয়াট (যৌথ জ্বালানি) এবং ২০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার মডিউলার পাওয়ার প্লান্ট নির্মাণে কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া দরপত্র প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ৪৫০ মেগাওয়াট (উত্তর) ইউনিটটির। ফেব্রুয়ারির মধ্যে দরপত্র প্রক্রিয়া শেষ হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। বর্তমানে আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি ৭৩১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হলে ২০১৬ সাল নাগাদ উৎপাদন দাঁড়াবে ১৭শ’ মেগাওয়াট।
আশুগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীর এই সফর আমাদের জন্য অনেক গর্বের। বিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং আন্তর্জাতিক  নৌ বন্দরের জন্য আশুগঞ্জের গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে। আমরা আশুগন্জে একটি  ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্হ্য কেন্দ্র এবং অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কামনা করছি।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে জেলায় এখন সাজ সাজ রব পড়ে গেছে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে। আওয়ামী লীগের মূল দল ও অঙ্গ সংগঠনের মাঝে সাংগঠনিক কর্মতৎপরতা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলা আইন শৃংখলার পরিস্থিতিতে এসেছে নাটকীয় পরিবর্তন। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমনে সড়ক পথ ও আকাশ পথ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আসার পর ল্যান্ডিংয়ের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে জেলার নিয়াজ মুহম্মদ স্টেডিয়াম ও সরাইলের প্রস্তাবিত কুট্টাপাড়া স্টেডিয়াম।।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares