Main Menu

আর কয়টি দূর্ঘটনা ঘটলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রামরাইল ব্রিজটি পূণঃনির্মাণ করা হবে ?

+100%-
আবুল হাসনাত মোঃ রাফি ॥ আর কত গুলো দূর্ঘটনা ঘটলে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রামরাইলের ঝুকিপূর্ণ মেয়াদ উত্তীর্ণ ব্রিজটি পূণঃনির্মাণ করা হবে?এই প্র্রশ্নের কেউ ই সঠিক উত্তর দিতে পারে না। কিছু দিন পর পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রামরাইলের এই ব্রিজ সংলগ্ন সড়কে বড় বড় দূর্ঘটনা ঘটে।এই ব্রিজটি নষ্ট হওয়াতে পাশে একটি অস্থায়ী স্টিলের বেইলি ব্রিজ স্থাপন করা হয়েছে অনেক আগেই। পরবর্তীতে এই সড়ক দিয়ে ভারতে আগরতলার পালাটানায় বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য আশুগঞ্জ নৌ-বন্দর থেকে আখাউড়া স্থল-বন্দর হয়ে ভারি ভারি মালামাল নিয়ে যাওয়া হয়।তখন ভারি যান চলাচলের জন্য পুরাতন জরাকির্ণ ব্রিজ ও অস্থায়ী স্টিলের ব্রিজ এর মাঝে একটি ড্রাইভারশন সড়ক নির্মাণ করা হয়।বর্তমানে মেয়াদ উত্তীর্ণ পুরাতনে ব্রিজের পাশাপাশী আরও দুইটি সড়ক আছে যান চলাচলের জন্য কিন্তু সড়ক গুলো যান চলাচলের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ । তারপরও যানবাহন গুলো প্রয়োজনের তাগিদে প্রানের মায়া না করে চলাচল করে যাচ্ছে।

সেনা সমর্থিত গত তত্তাবধায়ক সরকার মতায় থাকা কালীন সময়ে ব্রাহ্মনবাড়িয়ার জনগন ও এই সড়ক দিয়ে নিয়মিত যাতায়াতকারি যাত্রীরা আশা করে ছিল, বিগত রাজনৈতিক সরকার গুলো মতায় থাকতে দেশের অন্যতম ব্যস্ত এই সড়ক ও ব্রিজ গুলো নির্মাণ করেনি, এ তত্তাবধায়ক সরকার এই কাজ গুলো করবে।কিন্তু তত্তাবধায়ক সরকার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জনগন কে নিরাশ করেছে।পরবর্তীতে বর্তমান মহাজোট সরকার মতায় আসে।গত রোজার ঈদের সময় সারা দেশে সড়ক গুলোর বেহাল অবস্থার কারনে,সরকার সমালোচনায় মুখে পরে তখনও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জনগন ভেবে ছিল,এবার মনে হয় ব্রাহ্মনবাড়িয়ার উপর দিয়ে যাওয়া কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কাজ ও ব্রিজ গুলো পুনঃনির্মাণ হবে।ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসীর সেই ভাবনা ও বিফলে গেল।গত কয়েক মাস আগে বর্তমান মহাজোট সরকারের প্রথম যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন কে যোগাযোগ মন্ত্রনালয় থেকে সরিয়ে অন্য মন্ত্রণালয়ে স্থানান্তর করে আওয়ামিলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ওবায়দুল কাদের কে যোগাযোগ মন্ত্রী করা হয়েছে।যোগাযোগ মন্ত্রনালয় বদল হলে কি হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপর দিয়ে যাওয়া দূর্ভাগা  কুমিল্লা-সিলেটের এই মহা সড়কটির ভাগ্য বদল হয়নি আজও।গতকালও এই জরাকির্ন ব্রিজটি ও সড়কের কারনে একটি বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটেছে।তাতে সিএনজি ড্রাইভার সহ একজন পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে।ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রামরাইলের ব্রিজটি ও তা সংলগ্ন সড়ক যান চলাচলের অনুপযোগী হবার পরও যানবাহন চলাচল করাতে মানুষ নিহত হবার পাশাপাশি ট্রাক উল্টে মালামাল নষ্ট হয়ে আর্থিক ভাবে তিগ্রস্থ হচ্ছে এই সড়কে মালামাল বহনকারী ব্যবসায়ীরা ।আর বাস-ট্রাক বিকল হবার ঘটনা তো নিত্য দিনের।বাস-ট্রাক বিকল হলে ৪/৫ কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি প্রতিদিনের রুটিন হয়ে গেছে।ফলে এই সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীদের দূর্ভোগ প্রতিনিয়ত ভোগ করতে হচ্ছে। এই ঝুকিপূর্ণ ব্রিজটি পুনঃনির্মাণ সম্পর্কে সড়ক ও জনপদ বিভাগের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন,আমাদের বর্তমানে কোন ফান্ড না থাকাতে সহসাই ব্রিজটি ও তার সংযুক্ত সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছেনা। ত ব্যস্ততম সড়ক হওয়ার পরও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপর দিয়ে যাওয়া কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের  রামরাইলের মেয়াদ উত্তীর্ণ ব্রিজটি কেন পুনঃনির্মাণে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছেনা তা ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসী ও এই সড়কে নিয়মিত চলাচল করা যাত্রীদের মনে প্রশ্নের সৃষ্টি করেছে।কর্তৃপ এই ব্রিজটি নির্মাণের জন্য আর কয়টি দূর্ঘটনা অপোয় আছে তা সাধারন মানুষ জানে না কিন্তু দ্রুত ব্রিজটি পুনঃনির্মাণ করে এই সড়কে যাতায়াত করা যাত্রীদের দুর্ভোগ লাগব করবে তা ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসী প্রত্যাশা করছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares