Main Menu

কসবায় আযান শুনিয়ে ১৭০ ফুট উঁচু বিদ্যুতের টাওয়ার থেকে নামানো হলো সেই যুবককে

+100%-

রুবেল আহমেদ : কসবায় আযান শুনিয়ে বিদ্যুতের টাওয়ারের চূড়া থেকে নামানো হলো নাছির মিয়া (৩০) নামে এক যুবককে। মঙ্গলবার (৩০ মে) বিকেলে উপজেলা প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় উপজেলার বায়েক ইউনিয়নের বাড়িখলা এলাকায় ৪ লক্ষ ভোল্ট সঞ্চালন লাইনের বিদ্যুত টাওয়ারের চূড়া থেকে নামিয়ে এনে উদ্ধার করা হয় নাছির মিয়াকে। নাছির মিয়ার বাড়ি নোয়াখালী জেলার সেনবাগ উপজেলার ইয়ারপুর গ্রামে। সে ওই গ্রামের সিরাজ বাবুর্চির ছেলে। বর্তমানে তাকে কসবা থানা পুলিশের তত্বাবধানে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

বায়েক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বেলাল হোসেন জানান, উপজেলার বায়েক ইউনিয়নের বাড়িখলা উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া জাতীয় গ্রিডের ৪ লক্ষ ভোল্ট সঞ্চালন লাইনের উঁচু টাওয়ারের চূড়ায় একজন মানুষকে দেখা যাচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানায়। পরে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আমিনুল এহসান খানকে অবহিত করলে তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তাকে উদ্ধারে উপজেলার চৌমুহনীতে অবস্থিত দমকল বাহিনীকেও খবর দেয়া হয়। ঘটনাস্থলে গিয়ে দমকল বাহীনির লোকজন স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে হ্যান্ডমাইকে একের পর এক আযান দিতে শুরু করলে ধীরে ধীরে নাছির মিয়া বিদ্যুত টাওয়ারের চূড়া থেকে নামতে শুরু করে। মাঝামাঝি জায়গায় নামার পরে আযান বন্ধ করে দিলে সে আবার উপরের দিকে দ্রুত উঠতে থাকে। পরে স্থানীয় লোকজন আবার আযান দিতে শুরু করলে সে নীচে নেমে আসে। নীচে নেমে আসার পর ক্লান্তি দূর হলে তার নিকট ঠিকানা জানতে চাইলে সে তার বাড়ির ঠিকানা বলে।

নাছির মিয়া জানান, সে কিভাবে এসেছে বলতে পারেনা। একপর্যায়ে সে বলে তার সাথে জ্বিন জাতীয় কিছু আছে। প্রায় সময় তাকে জ্বিনে বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ টাওয়ারের চূড়ায় তুলে আবার আযান শুরু হলে তাকে নামিয়ে দেয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আমিমুল এহসান খান জানান, বিদ্যুতের উঁচু টাওয়ারের চূড়া থেকে নাছির মিয়া নামে এক যুবককে জীবিত অবস্থায় নামিয়ে আনা হয়েছে। তাকে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসা করানো হচ্ছে।

কসবা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, বিদ্যুতের উঁঁচু টাওয়ার থেকে যুবককে জীবিত উদ্ধারের পর পুলিশী হেফাজতে রাখা হয়েছে। বর্তমানে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ মে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় একটি টাওয়ারে উঠার পরে একই কায়দায় নামিয়ে আনা হয়েছিল তাকে। এর ৫ দিনের মাথায় আজ পাশের কসবা উপজেলায় ফের টাওয়ারে উঠে জিকির করছিলেন নাসির ।