Main Menu

নবীনগরে শান্তির বার্তা নিয়ে দাঙ্গাপ্রবণ গ্রামে সাংসদ

+100%-

মিঠু সূত্রধর পলাশ,নবীনগর প্রতিনিধি:  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের ‘অশান্ত’ গৌরনগর গ্রামে শান্তি ফেরানোর লক্ষ্যে শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বেলার ১১টার দিকে দাঙ্গাপ্রবণ ওই গ্রামের বাসিন্দাদের নিয়ে স্থানীয় ঈদগাহ মাঠে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ এবাদুল করিম।
তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে গৌরনগর গ্রামের সরকার গোষ্ঠী ও আজইরা গোষ্ঠীর লোকজনদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধের জেরে প্রায়ই দুই গোষ্ঠীর লোকজনদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এসব সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন অনেকেই। সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষ হত্যা ও লুটপাটের পাল্টা মামলা দায়ের করে। এরপর পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে গ্রাম ছেড়ে পালান হত্যা মামলার আসামিরা।
গৌরনগর গ্রামে চলা দীর্ঘদিনের এ অশান্ত পরিবেশ শান্ত করতে এবার উদ্যোগী হয়েছেন সাংসদ এবাদুল করিম। গ্রাম থেকে বিতাড়িতদের পুনর্বাসনেরও ব্যবস্থা করেছেন তিনি।
শান্তি সমাবেশে সাংসদ বলেন, আমরা যারা রাজনীতি করি তাদেরও দায়িত্ব সমাজকে কলুষমুক্ত রাখা এবং শৃঙ্খলা রক্ষা করা। যারা আমার নির্বাচনে জানে-মালে খেটেছেন তাদের মধ্যে থেকেও কেউ যদি সমাজে অশান্তি সৃষ্টি করে তাহলে আমি তাদের বিরুদ্ধেও দাঁড়াব। কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।
গ্রামের বাসিন্দাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা যদি খুনাখুনি করে গ্রামে অশান্তি সৃষ্টি করেন তাহলে আপনাদের সন্তানরা কী শিখবে, কিভাবে তারা সুশিক্ষিত হবে? আপনাদের পায়ে হাত দিয়ে বলছি আপনারা অশান্তি করবেন না। আমার কোনো পিছুটান নেই, আমি আবার এমপি হতে চাই না যে আপনাদের সমীহ করে চলব।
এ সময় তিনি গৌরনগর গ্রামে দুই গোষ্ঠীর বিরোধে ইন্ধনদাতাদের খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন।
শান্তি সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাবিবুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন চৌধুরী শাহান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) চিত্তরঞ্জন পাল, নবীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনোজিৎ রায়, পরিদর্শক (তদন্ত) রাজু আহমেদ প্রমুখ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares