Main Menu

নবীনগরে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে ইউএনও এর কার্যকরী উদ্যোগ

+100%-

নবীনগর প্রতিনিধি:  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে গত ২৫ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রিঃ তারিখে মোহাম্মদ মাসুম দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এ অল্প সময়ের মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষায় ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম এর কিছু কার্যকরী উদ্যোগ উপজেলায় ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। গত মার্চ মাসে এ উপজেলাধীন ২২১ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে মতবিনিময় সভা করেন। এ সভায় মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকল্পে প্রধান শিক্ষকদের সুস্পষ্ট ধারণা প্রদান করেন। বিদ্যালয়ের স্লিপ ফান্ডের টাকা যথাযথ বিধিবিধান অনুসরনপূর্বক খরচের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। প্রতিটি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ আন্যান্য সদস্য ও স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যাক্তিবর্গের উপস্থিতিতে প্রতিটি বিদ্যালয়ে “মা” সমাবেশ আয়োজনের ব্যবস্থা করেন।

শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বপ্ন সৃষ্টির উদ্দেশ্যে “মা” সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অনুপ্রেরণাদায়ক বক্তব্য প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকদের সাথে মেলবন্ধন রচনা করেন। সুস্বাস্থ্যে সুশিক্ষা-এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে প্রতিটি ইউনিয়নের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানদের সহায়তায় “হাইজিন প্যাক” বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। প্রতিটি হাইজিন প্যাক টুথব্রাশ,টুথপেস্ট,নেইলকাটার, লিকুইড স্যাভলন,সাবান এ পাঁচটি আইটেম সমন্বয়ে করা হয়। হাইজিন প্যাকের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্য সচেতন এবং পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকার বিষয়টি সম্পর্কে সম্যক ধারনা লাভ করেন। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের চিহ্নিত করে প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এস,এম,সি সভাপতি ও স্থানীয় চেয়ারম্যানের সহযোগিতায় শিক্ষা উপকরণ, টিফিনবক্স,ইউনিফর্ম বিতরণের ব্যবস্থা করেন।

সরকারিভাবে ১৬৩টি ল্যাপটপ বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিতরণ করা হয়। উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে ০৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ০৫টি ল্যাপটপ প্রদান করা হয় এবং ০৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর প্রদান করা হয়। ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে পাঠদানের জন্য ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরীপূর্বক মাল্টিমিডিয়া ক্লাশরুমের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। এতে শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত আনন্দে, উৎসাহ-উদ্দীপনার সহিত পাঠদান প্রক্রিয়ার সাথে পরিচিত হচ্ছে। বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রমের আওতায় ডিজিটাল হাজিরা চালু, সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। আইসিটি বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষকদের প্রশিক্ষিত করা। উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বেঞ্চ-টুলসরবরাহ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিজস্ব অর্থায়নে ০৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ মেরামতসহ সংস্কারের জন্য ঢেউটিন বরাদ্ধ, নগদ অর্থ এবং সিলিং ফ্যান বিতরণ করা হয়েছে। পরিবেশের বিষয়টি শিক্ষার্থীদের অবগত করানোর জন্য বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়েফলদ ও বনজ গাছের চারা বিতরণ করা হয়েছে। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিজস্ব ফান্ড থেকে আর্থিক অনুদান প্রদানসহ শিক্ষা উপকরণ প্রদান করা হয়েছে। স্থানীয় বিদ্যোৎসাহী এবং ধনাঢ্য ব্যক্তিদের সহায়তায় মিড -ডে মিল কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। মিড-ডে মিল কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের মধ্যে টিফিন বক্স বিতরণ করা হয়েছে। ঝরে পড়া রোধে এবং শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিতকল্পে প্রতিটি বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সকলের উদ্যোগে “উঠান বৈঠক”এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিজস্ব অর্থায়নে ও উদ্যোগে কিছু সচেতনতামূলক ফেস্টুন তৈরীপূর্বক সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার কর্তৃক বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন বিষয়ক প্রবন্ধের মাধ্যমে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকদের সচেতন করার প্রয়াস সকলের কাছে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। নবীনগরে ইউএনও এর উদ্যোগে এবং শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের সহায়তায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইংরেজি বিষয়ের বিষয়ভিত্তিক দক্ষতা, শোনা, বলা, পড়া ও লেখার জন্য একটি ইনোভেশন আইডিয়ার সফল প্রয়োগ হচ্ছে। এ ইনোভেশন আইডিয়াটি ইতোমধ্যে জেলার অন্যান্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রয়োগের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাব স্কাউটিং এ অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সহশিক্ষা কার্যক্রমসমূহ বাস্তবায়নের মাধ্যমে একটি শিশুকে আগামী দিনের যোগ্য নাগরিকহিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রেউপজেলা প্রশাসন কর্তৃক বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। সর্বোপরি একটি আলোকিত ও শিক্ষিত সমাজ বিনির্মাণেমানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

নবীনগর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ইউএনও কর্তৃক গৃহীত পদক্ষেপ ও উদ্যোগসমূহ সফলভাবে বাস্তবায়নের কারণে প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিতসহশিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে একটি সেতুবন্ধন রচিত হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষায় ইউএনও এর উদ্যোগসমূহ নবীনগর উপজেলাকে একটি রোল মডেল হিসেবে সারা দেশে পরিচিত করবে এটাই নবীনগরবাসীর প্রত্যাশা।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares