Main Menu

নবীনগরে ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ রানার মুক্তির দাবিতে আওয়ামীলীগের বিশাল প্রতিবাদসভা

+100%-

মিঠু সূত্রধর পলাশ, নবীনগর প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার সাতমোড়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মাসুদ রানার অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে আজ সোমবার দুপুরে নবীনগর সদর বড় বাজারে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে এক বিশাল প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় সাবেক সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদলের সভাপতিত্বে উক্ত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান মনির জেলা আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র এড. শিব শংকর দাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি এড. সুজিত কুমার দেব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন সাদেক, জেলা আওয়ামীলীগ নোত মো. জসিম উদ্দিন আহাম্মেদ,আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন চৌধুরী শাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নোত প্রবির ভূমিক, সহ উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামীলীগ নেতা মো. নাছির উদ্দিনের সঞ্চালনায় এসময় বক্তারা বলেন, জোড়া খুনের একটি মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে চেয়ারম্যান মাসুদকে জেলে নেওয়া হয়েছে। অবিলম্বে মাসুদ চেয়ারম্যানের মুক্তিসহ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানান স্থানীয় নেতারা। এসময় প্রতিবাদ সভার সভাপতি ফয়জুর রহমান বাদল নবীনগর উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি নিয়ে কোন প্রকার বিব্রান্তি সৃষ্টি না করতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগ নেতাদের হুঁশিয়ারি প্রদান করেন। তিনি বলেন,ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে কোন প্রকার হানাহানি-মারামারী সৃষ্টি হলে তার দায় জেলা ছাত্রলীগকেই নিতে হবে।
উল্লেখ্য যে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ উপজেলার সাতমোড়া ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামে সালিসের কথা বলে ডেকে নিয়ে রছুল্লাবাদের ‘হক ডাকাত’খ্যাত খন্দকার এনামুল হক ও তার ভায়রা ভাই বিজিবির সবেক সদস্য ইয়াছিন মিয়াকে পিটিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। পরে নিহত এনামুলের স্ত্রী তসলিমা বাদী হয়ে পার্শ্ববর্তী সাতমোড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুদ রানাকে জোড়া খুনের মামলায় তিন নম্বর আসামি দিয়ে একটি হত্যা মামলা করেন। গত ৮ মার্চ (সোমবার) এ মামলায় আত্মসমর্পন করতে ব্রাাহ্মণবাড়িয়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন চেয়ারম্যান মাসুদ রানা। কিন্তু বিজ্ঞ আদালত জামিন নামঞ্জুর কওে চেয়ারম্যান মাসুদ রানাকে জেলা হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।