Main Menu

নবীনগরের হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া ৪৭ দিন বয়সী শিশু ৫ ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার

+100%-

মিঠু সূত্রধর পলাশ, নবীনগর:: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার একটি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়া ওবায়েদ নামের ৪৭ দিন বয়সী শিশুকে ৫ ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে। আজ রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় নূর জাহান নামের এক কিশোরী শিশুকে ঝোপের মধ্যে কুড়িয়ে পেয়ে সদর থানা–পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। শিশু ওবায়েদ উপজেলার মাঝিকাড়া গ্রামের কাউসার মিয়ার ছেলে। নূর জাহান ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মেড্ডা এলাকার বাসিন্দা।

স্থানীয় লোকজন, শিশুর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শিশুটির মা সাবিনা আক্তার আজ রবিবার বেলা আড়াইটার দিকে চিকিৎসার জন্য নবীনগর উপজেলা সদরের বেসরকারি আহমদ হাসপাতালে যান। সেখানকার এক চিকিৎসক তাঁকে আল্ট্রাসনোগ্রাফি করার পরামর্শ দেন। এরপর তিনি রিসিপশনে পরীক্ষার টাকা জমা দেন। আল্ট্রসানোগ্রাফি কক্ষে প্রবেশের আগে সাবিনা নিজের সন্তানকে পাশে বসা বোরকা পরা ৩০ থেকে ৩৫ বছর বয়সী অপরিচিত এক নারীর কোলে রেখে যান। আল্ট্রাসনোগ্রাফি শেষে কক্ষ থেকে বের হয়ে শিশুসহ অপরিচিত ওই নারীকে সেখানে আর পাননি তিনি। হাসপাতাল ও এর আশপাশ এলাকায় খোঁজাখুঁজি করে কোথাও তাঁদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ হওয়ার পর শিশুটির মা সাবিনা প্রায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিখোঁজের পর পুলিশ শিশুটিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। কিন্তু কোথাও শিশু ও ওই নারীর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। আজ বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নূর জাহান নামের এক কলেজছাত্রী জেলা শহরের হালদারপাড়ার সূর্যমুখী কিন্ডারগার্টেন এলাকার একটি ঝোপে কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় শিশুটিকে দেখতে পায়। নূর জাহান শিশুটিকে উদ্ধার করে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে নূর জাহান তার মায়ের সঙ্গে শিশুটিকে সদর থানায় নিয়ে যায়। পরে শিশুটিকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পুলিশ শিশুটিকে সঙ্গে সঙ্গে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়।

নবীনগর থানার ওসি আমিনুর ইসলাম শিশুটি উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা ওই নারী শিশুটিকে জেলা শহরের একটি ঝোপঝাড়ে রেখে চলে যান। মা তাঁর সন্তানকে শনাক্ত করেছেন।