Main Menu

দোহাই দুই নেত্রীকে, আপনারা দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচান

+100%-

মোঃ আব্দুল হান্নান:দোহাই দুই নেত্রীর প্রতি, আপনারা দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচান। আপনারা জানেন- দেশ আজ অগ্নিগর্ভে নিমজ্জিত হতে চলেছে। দেশের মানুষ আজ অসহায়। আপনাদের দুইজনেরই ক্ষমতার লোভের কারনে দেশের সাধারন মানুষের মেরুদন্ড ভেঙ্গে পড়েছে। এ দেশের কৃষকরা আজ অসহায়। হরতাল অবরোধের কারণে যানবাহন চলতে পারছেনা। ব্যবসায়ীরা মালামাল আনতে না পারায় মাঠে সারের জন্য হাহাকার করছে কৃষক। কৃষক তাদের কষ্টার্জিত ফসল বাজার জাত করতে পারছে না। কৃষকের মেরুদন্ড ভেঙ্গে পড়েছে। যানবাহনের শ্রমিকরা কাজে যেতে পারছে না। অনেক শ্রমিক কাজে না যেতে পারায় তাদের উনুনে আগুন জ্বলছে না। শ্রমিকরা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। শহরাঞ্চলে অনেকেই আবার জীবনের নিরাপত্তার জন্য ঘর থেকে বের হতে পারছে না। আর কত মায়ের বুক খালি করবেন আপনারা। আপনারা ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলীয় দুই নেত্রীই মা। আপনাদের ও ছেলে সন্তান রয়েছে। সন্তান হারানো মায়ের বুকফাটা যন্ত্রনা যে, কত কঠিন তা আপনারা অবশ্যই বুঝেন। কিন্তু কেন আপনারা জেনে শুনে বুঝে প্রতিদিন বহু মায়ের বুক খালি করছেন? আপনারা অবশ্যই কোরআন ও হাদিসকে অস্বীকার করেন না। পবিত্র কোরআনে উল্লেখ আছে জীব হত্যা মহাপাপ। কিন্তু আপনারা জেনে শুনে প্রতিদিন আগুনে পুড়িয়ে মানুষ মারছেন। বাংলাদেশটা আজ মানুষের সৃষ্টি মিনি নরকে পরিনত হতে চলেছে। আর কত ক্ষমতা ও সম্পদের দরকার আপনাদের। আপনারা দেখেছেন, বিগত পাঁচ বছরে আওয়ামী লীগের শাসনামলে অনেক মন্ত্রী আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে গেছে। ঢাকা- ১ আসনের আব্দুল মান্নান খাঁন, জামালপুর- ৩ আসনের মির্জা আজম, মাধারীপুর- ১ আসনের নূরই আলম চৌধূরী, ঢাকা- ১৩ আসনের জাহাঙ্গীর কবির নানক, ঢাকা- ১০ আসনের ফজলে নূর তাপস, ঢাকা- ১৬ আসনের ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা, নারায়নগঞ্জ- ২ আসনের নজরুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি আসনের দীপংকর তালুকদার, হারুণ আল রশিদ, মানসুরা হুসাইন, মোশতাক আহম্মেদ, আনোয়ার হোসেন, পার্থ শংকর সাহা, কুনতল রায়, মোসাব্বের হোসেন, চট্টগ্রাম- ১০ আসনের আফসারুল আমীন, চট্টগ্রাম- ১১ এম এ লতিফ, চট্টগ্রাম- ১২ সামছুল হক চৌধূরী, কুমিল্লা- ১০ আ হ ম মোস্তফা কামাল, কুমিল্লা- ৭ মোঃ আলী আশরাফ, সিলেট- ২ শফিকুর রহমান চৌধূরী, সিলেট- ৩ মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধূরী, সিলেট- ৪ ইমরান আহমেদ, পঞ্চগড়- ১ মোঃ মজাহারুল হক প্রধান, নাটোর- ৩ জুনাঈদ আহমেদ, ঢাকা- ২ কামরুল ইসলাম। গত ৫ বৎসরে ক্ষমতা থেকে সম্পদশালী হওয়ার উদাহারণ পাওয়া যাচ্ছে। তাদের মধ্যে কেউ কেউ চোখে পড়ার মত অর্থ ও বিত্ত অর্জন করেছেন। সংসদ বদির আয় বেড়েছে ৩৫১ গুণ। চট্টগ্রাম- ৪ আসনের চিত্রে দেখা গেছে সাংসদ হয়েছেন তারা, সম্পদ বেড়েছে স্ত্রীদের। ৫ বছরে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন প্রধান মন্ত্রীর বিশেষ সহকারী আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পদক মাহবুব-উল আলম, প্রধান মন্ত্রীর আমানতও বেড়েছে বলে ২১ ডিসেম্বর প্রথম আলোতে সংবাদ ছাপা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনে প্রার্থীদের দেওয়া হলফনামাই এর প্রমাণ। বাংলাদেশের রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে বিশ্বে এখন আলোচনার ঝড় বইছে। যুক্তরাজ্যের প্রভাবশালী সংবাদ সাময়িকী দি ইকোনোমিস্ট বলেছে বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জিতবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ কিন্তু হাড়বে দেশ। শনিবারের প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তাদের অনলাইনে ও প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে। শুক্রবার বাংলাদেশ প্রতিদিনে পর্যবেক্ষণ কলামে পীর হাবিবুর রহমান লিখেছেন হাসিনা দাঁড়িয়েছেন, খালেদাও দাঁড়ান। ২১ডিসেম্বর ভারতের আনন্দ বাজার পত্রিকার উদ্ধৃতি দিয়ে দৈনিক ইত্তেফাক লিখেছে সহিংসতা দমণ আর বিশ্বকে পাশে টানাই চ্যালেঞ্জ শেখ হাসিনার। এ সংকটের শেষ কোথায় ? নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ১৮ দলের হরতাল অবরোধে জন জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ১৮ দলের ডাকা অবরোধ কর্মসূচীর সমর্থনে সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবি সমিতির সম্পাদক ব্যারিষ্টার মাহবুব উদ্দিন শেখ হাসিনাকে গণতন্ত্র ও মানুষ হত্যাকারী বলে উল্লেখ করেছেন। জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান কাজী জাফর বলেছেন- সরকারই জাতীর সাথে তামাশা করছেন। বিএনপির অভিযোগ বিশেষ অভিযানের নামে নেতাদের গুম হত্যা করা হচ্ছে। আপনারা জানেন-মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। আর সেরা জীব হিসাবে মানুষের কয়েকটি দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে। মণিষী র‌্যাকিং বলেছেন- পৃথিবীতে প্রত্যেকটি মানুষের তিনটি কর্তব্য রয়েছে- আল্লাহ বা ঈশ্বরের সেবা করা, মা-বাবার সেবা করা ও মানুষের সেবা করা। এর মধ্যে সর্বোৎকৃষ্ট হল মানুষের সেবা করা। প্রত্যেক ধর্মে উল্লেখ রয়েছে-নর হত্যা মহাপাপ কিন্তু দূর্ভাগ্য জনক হলেও সত্য যে, বাংলাদেশের কোথাও না কোথাও প্রতিদিন বন্ধুকের গুলিতে, আগুনে পুড়িয়ে মানুষ মারার চিত্র বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় ও টেলিভিশনে দেখা যাচ্ছে। এ সমস্ত নর হত্যা বন্ধ হবে কখন ? আপনারা জানেন- বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৫০ বছর। কিন্তু আপনারা দুই নেত্রীর বয়সই ৫০ পার হয়ে গেছে। সামনে আপনাদের পড় পাড়ের ডাক। এখন আপনাদের পর কালের জন্য কিছু অর্জন করা প্রয়োজন। কিন্তু আপনারা তা না করে ক্ষমতার মোহে পড়ে অন্ধের মত দেশ ও দেশের মানুষকে নরকে ঠেলে দিচ্ছেন কেন? প্রখ্যাত রাষ্ট্রবিজ্ঞানী পল জ্যানেট বলেছেন ক্ষমতা বন্দুকের নল দিয়ে আসে না, জনগনই সকল ক্ষমতার উৎস। সম্প্রতি রাজনৈতিক সংকট ও অচলাবস্থা নিরসনে ব্যবসায়ীরা সাদা পতাকা ধারন করে মিছিল মিটিং ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন সাজানো নির্বাচনের মাধ্যমে মৌলিক অধিকার হুমকির মুখে । জাতীয় সমাজতান্ত্রিকদল (জাসদ) ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, সংবিধান মেনে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে পারবে বিএন পি। অপর দিকে নির্দলীয়  নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের দাবীতে শিগগিরই মাঠে নামবে খালেদা জিয়া, এমন হুসিয়ারী উচ্চারণ করেছেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এডঃ খন্দকার মাহবুব হোসেন। ক্ষমতাসীন ও বিরোধী দলের এমন আবুল তাবুল প্রলাপ শুনে জনগণ মনে করছেন,কেউ দীর্ঘদিন ধরে জ্বরে অথবা সর্দিতে আর কেউ অপুষ্টিতে ভুগছেন। আমি  এদেশের  একজন  সাধারণ নাগরিক হিসেবে বলব এখনো সময় আছে অতীতকে বাদ দিয়ে আগামী দিনে দেশ ও দেশের মানুষ রক্ষার কাজে আপনারা উভয়ই এগিয়ে আসুন। মোঃ আব্দুল হান্নান, সাংবাদিক ও লেখক






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares