Main Menu

যোগ্য ,ত্যাগী,সৎ ও দুর্দিনে ছাত্রলীগের অনুসারীরাই আসবে আগামীর নেতৃত্বেঃ শামীম সরকার

+100%-

ঘুরছে ঘড়ির কাটা ।কিছু দিন পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে স্বাধীনতার দেশের সব আন্দোলন-সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারী ঐত্যিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শাখার আখাউড়া উপজেলা ধরখার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলন।নতুন নেতৃত্বে অপেক্ষায় ছাত্রলীগপাড়ায় এখন উৎসববর।ছাত্রলীগের ইতিহাসে বিদ্যমান ধরখার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তি ঘোষনার পর এবারই প্রথম দ্রুততম সময়ের মধ্যে সম্মেলনের তারিখ ঘোষনা করতে যাচ্ছে আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগ।এ সম্মেলনকে ঘিরে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যপক উৎসাহ-উদ্দীপনা শীর্ষ পদে জায়গা পেতে এরই মধ্যে পদপ্রত্যাশীরা জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তবে এবারে নেতৃত্বে অতীতের চাইতে অনেক বেশী অনুকরণীয় হয়ে থাকবে বলে মনে করেন ছাত্রলীগের নেতা মোঃশামীম সরকার ।তিনি মনে করেন,ছাত্রলীগের শীর্ষ পদগুলোতে যোগ্যতা,মেধা ও আওয়ামী ঘরের শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে নেতা নির্বাচনের স্পষ্ট বার্তা থাকা চাই।

তিনি বলেন,আমি যতটুকু জানি আওয়ামীলীগের হাইকমান্ড ও কসবা-আখাউড়া উপজেলার উন্নয়নের রুপকার গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় আইনমন্ত্রী এ্যাডভোকেট আনিসুল হক এম.পির একটি সুন্দর একটি নির্দেশনা রয়েছে।আর মাননীয় আইনমন্ত্রীর জানিয়েই দিলেন ,তার একমাত্র পছন্দ মেধাবী ছাত্র।ব্র্রাহ্মণবাড়িয়া -৪(কসবা-আখাউড়া) আসনের সাংসদ এবং আইন,বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী হকের নির্দেশনা অনুযারী ”কারাগারের রোজনামচা’ও অসমাপ্ত আত্মজীবনী” দুটি বই থেকে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হবে।সৃজনশীল পদ্ধতিতে ৬০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা এবং ৪০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে মেধাবী ছাত্রনেতা বাছাই করা হবে।যারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে লালন করে জীবনকে বাজী রেখে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে ছিল তারাই নেতৃত্বে আসবে ।

ধরখার আখাউড়া ছাত্রলীগ নেতা শামীম সরকার মনে করছেন অবশ্যই যারা ত্যাগী,সৎ,দুর্দিনে ছাত্রলীগের সঙ্গে ছিল এবং যারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মিশন-ভিশন বাস্তবায়ন করতে পারবে এমন ছাত্ররাই আগামী নেতৃত্বে আসবে।বঙ্গবন্ধুর কন্যা’ দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে,আগামী দিনেও দেশ এগিয়ে যাবে।কোন ষড়যন্ত্র’বাংলাদেশকে উন্নয়ন যাত্রাকে বাধাগস্ত করতে পারবে না।সেই ধারাবাহিকতা কসবা-আখাউড়া উন্নয়নের রুপকার গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় আইনমন্ত্রী এ্যাডভোকেট আনিসুল হক এম.পি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে জনগণের কল্যাণের স্বার্থে রাত-দিন সমানে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ।তাই যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত তারাই ছাত্রলীগের স্থান অর্জন করুক।

আমার জানামতে,ধরখার ইউনিয়নের অনেক নব্য ছাত্রলীগ কর্মী রয়েছে যাদের পরিবার বি.এন.পি প্রন্থী ছিল ।তারা বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা ও স্বার্থ আদায়ের লক্ষে আওয়ামীলীগের সু-সময়ে এসে তারা ছাত্রলীগের পদ-পদবী পাওয়ার জন্য জোর লবিং চালাচ্ছেন।

ছাত্রলীগ নেতা শামীম সরকার আরো বলেন,আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন বেগ শাপলু ভাই ও সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন নয়ন হচ্ছেন যোগ্য,ত্যাগী ছাত্রলীগ কর্মী।আজকে তারা এই প্লাটফ্রম অর্জন করতে অতীতে অনেক ত্যাগ তীতিক্ষা বিসর্জন দিতে হয়েছে।আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের দুই কর্ণদ্বার অতীতে সঠিক সময়ে সঠিক মূল্যায়ন পায় নি এবং বহু বছর অপেক্ষার পর তৃনমূল থেকে ছাত্রলীগ করে বর্তমানে আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের অভিবাভক হিসেবে দায়িত্ব পালন করিতেছে।তারা হঠাৎ করে ব্যাঙ্গের ছাতার মত ও মটর সাইকেল শোডাউন , সেলফি ছবি তুলে ফেইসবুকে অমুক ভাই তমুক ভাইয়ের নামে ছলনাময়ী স্ট্যাটাস দিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের অভিবাভক হয় নাই।বর্তমানে আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগ সংগঠনটি হচ্ছে উপজেলা শ্রেষ্ঠ সংগঠন।সেই ক্ষেত্রে উপজেলা ছাত্রলীগের কর্ণদ্বার ও অভিবাভক মহোদয়ের প্রতি আমার আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে যোগ্য, সৎ ,ত্যাগী ও মেধাবী ছাত্রলীগ কর্মীর মাধ্যমে ধরখার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কমিটি সবার মাঝে উপহার দিবে কোন নব্য হাইব্রীড ও সুবিধাভোগী ছাত্রলীগ কর্মীর মাধ্যমে নয়।

এমনকি আখাউড়া উপজেলা পৌরসভার দুইবারের নির্বাচিত মেয়র,যুবলীগের আহ্বায়ক, মাননীয় আইন মন্ত্রী মহোদয়ের আস্থাভাজন ব্যক্তিত্ব তাকজিল খলিফা কাজল ভাই ও রাত দিন নিরলস ভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন কিভাবে আখাউড়া উপজেলার প্রত্যেকটা ইউনিট যোগ্য নেতাদের মাধ্যমে কমিটি গঠিত হবে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares