Main Menu

আখাউড়ায় বিজিবি বিএসএফ’র উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত

+100%-

প্রতিনিধি : আখাউড়ায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্ত রীবাহিনী (বিএসএফ) এর আঞ্চলিক পর্যায়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।  বুধবার বেলা এগারটায় আখাউড়া সীমান্তের— বিজিবি আইসিপি ক্যাম্পে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন বিজিবির অতিরিক্ত মহা পরিচালক ও আঞ্চলিক অধিনায়ক ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. আইয়ুব আনসারী, পিএসসি। এসময় বাংলাদেশের পক্ষে আরও উপস্থিত ছিলেন  উপ মহা পরিচালক ও সেক্টর কমান্ডার শ্রীমঙ্গল কর্ণেল আবু সালেহ মো: গোলাম আম্বিয়া, এএফডাব্লিউ, পিএসসি, ভারপ্রাপ্ত সেক্টর কমান্ডার কুমিল্লা লে: কর্ণেল মামুন আল মাহমুদ, পিএসসি, উত্তর-পূর্ব আঞ্চলিক ডিরেক্টর অপারেশন সরাইল, লে: কর্ণেল মো: আব্দুর রউফ, জি ও উপ অধিনায়ক ১২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন সরাইল মেজর শাহজাহান জি। ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ত্রিপুরা সীমান্ত রক্ষী বাহিনী ত্রিপুরার ইন্সপেক্টর জেনারেল শ্রী রজনি কান্ত মিশ্রা, আইপিএস । উপস্থিত ছিলেন উপ ইন্সপেক্টর জেনারেল গোকুল নগর সেক্টর শ্রী বি এস টালিয়া, উপ ইন্সপেক্টর জেনারেল তেলিয়ামুড়া শ্রী রাজিব সিনহা ও ১৯৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন কমান্ডেন্ট  শ্রী সায়াম কুমার।
বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে বিদ্যমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক এবং পেশাগত যোগাযোগ আরো জোরদার ও সুসংহত করার বিষয়ে আলোচনা হয়। তাছাড়া সীমান্তের বিভিন্ন সমস্যাদির সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে সীমান্ত রী বাহিনীর মধ্যে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ও সম্পর্ক বজায় রাখার বিষয়ে গুরুত্বারূপ করা করা হয়। উভয় পক্ষ পারস্পরিক সহযোগিতার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
বেলা এগারটায় শুরু হয়ে ১টা পর্যন্ত অত্যন্ত সৌহার্দ্য পূর্ণ পরিবেশে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।  

বৈঠক শেষে বিএসএফ ত্রিপুরার ইন্সপেক্টর জেনারেল শ্রী রজনি কান্ত মিশ্রা সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ভারতের অভ্যন্তরে (ত্রিপুরায়) ফেন্সিডিলের কারখানা আছে কীনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি এটি আমি নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। বিএসএফের সীমিত দায়িত্ব। বিএসএফ সীমান্ত নিরাপত্তা রায় কাজ করে। দেশের অভ্যন্তরে অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আছে। সিভিল পুলিশ আছে। এটা তারা দেখবে। তবে আমরা এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব। তিনি বলেন যে কোন ধরনের মাদক চোরাচালান এটা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ। হোক সেটা ভারতে কিংবা বাংলাদেশ।
বিজিবির অতিরিক্ত মহা পরিচালক ও আঞ্চলিক অধিনায়ক ব্রিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. আইয়ুব আনসারী, পিএসসি বলেন, সীমান্তে অপরাধ যাতে না হয়। সীমান্তে যাতে চোরাচালান না হয়, মানব পাচার যেন না হয়, দুইদেশের বাহিনীর মধ্যে যেন কোন সমস্যা না হয় এজন্যই আমরা এ ধরনের বৈঠক করে থাকি। নিয়মিত যোগাযোগের অংশ হিসেবেই এই বৈঠক।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares