Main Menu

ট্রাফিক পুলিশের চাদাঁবাজির প্রতিবাদে আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে ৮জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ

+100%-

প্রতিনিধি॥ কিশোরগঞ্জ ও ময়মনসিংহের বিভিন্ন হাইওয়েতে ট্রাফিক পুলিশের চাদাঁবাজির প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে ৮জেলায় সার সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ট্রাক চালক শ্রমিক ইউনিয়ন। এতে করে কারখানার কমান্ড এরিয়াভুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিলা, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, চাঁদপুর, হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার জেলায় ৭৭৪ জন ডিলারের মধ্যে সার সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। প্রতিদিন আশুগঞ্জ সার কারখানা থেকে প্রায় ১৫’শ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার কমান্ড এরিয়াভুক্ত বিভিন্ন জেলায় সার সরবরাহ করা হয়। সার সরবরাহ বন্ধ থাকায় ৮ জেলায় সার সংকটের আশংকা করছে সার ব্যবসায়ীরা। সার সরবরাহ বন্ধ থাকায় কারখানার প্রধান গেইটের সামনে আটকা পড়েছে কয়েকশ ট্রাক। চাদাঁবাজির প্রতিবাদে দুপুর ১২টায় শ্রমিকরা বিােভ মিছিল করেছে। মিছিলে শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ইদন মিয়া মিন্টুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সাধারন সম্পাদক আবুল খায়ের।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ট্রাক চালক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ইদন মিয়া মিন্টু জানান, আশুগঞ্জ সারকারখানা থেকে প্রতিদিন প্রায় ১শ ট্রাক সার নিয়ে কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ জেলায় যাতায়াত করতে হয়। যাতায়াতের সময় কিশোরগঞ্জ চৌরাস্তা, ভৈরব, কালিকাপ্রশাদ, কুলিয়ারচর, কটিয়াদী ময়মনসিংহের নান্দাইলের হাইওয়ের ট্রাফিক পুলিশ ব্যাপক ভাবে চাঁদাবাজি করছে। প্রতিটি ট্রাক থেকে দেড় থেকে দুই হাজার টাকা আদায় করছে পুলিশ। চাদাঁ না দিলে ট্রাক শ্রমিকদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি ও ব্যাপক মারধর করে থাকে। ট্রাকের বৈধ কাগজপত্র থাকলেও টাকা না দিলে তারা ট্রাক আটক করে রাখে। গত ৩/৪ মাস ধরে অবস্থা খুবই খারাপ। পুলিশকে অতিরিক্ত টাকা দিয়ে ট্রাক মালিকের সাথে ট্রাক শ্রমিকদের কথাকাটি এমনকি মালিকদের নির্যাতনের শিকার হতে হয়। এর প্রতিবাদে ট্রাফিক পুলিশের চাাঁবাজি বন্ধ না হলে কারখানা থেকে সার পরিবহণ করা হবে না। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সাধারন সম্পাদক জালাল উদ্দিন জানান, ট্রাক চালক শ্রমিকরা সার পরিবহন বন্ধ করে দেয়া এখন কমান্ড এরিয়া ভুক্ত জেলায় সার সংকটের সম্ভাবনা রয়েছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares