Main Menu

আশুগঞ্জ নৌবন্দর থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে ভোজ্য তেল পরিবহন শুরু

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ নৌবন্দর থেকে সড়ক পথে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে ভোজ্য তেল পরিবহন শুরু হয়েছে।

কাস্টমস আনুষ্ঠানিকতা শেষে বৃহস্পতিবার ভোরে ২৫টন তেল নিয়ে ২টি ট্রাক আশুগঞ্জ নৌবন্দর থেকে থেকে ত্রিপুরার আগরতলা রাজ্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।১৯৭২ সালের নৌ প্রটোকোল চুক্তির ট্রান্সশিপমেন্ট এর আওতায় বিনাশুল্কে এই ভোজ্য তেল নিচ্ছে ভারত।এই চুক্তির আওতায় এর আগে মানবিক কারণ দেখিয়ে প্রথমে পালাটানা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভারী যন্ত্রাংশ ও পরে কয়েক দফায় ফ্লায়েস,রড,স্টীল সীট,চাল পরিবহনের পর এবার ভোজ্য তেল নিচ্ছে ভারত।

নৌবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, গত ১২ নভেম্বর দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হলদিয়া বন্দর থেকে ইমামী এগ্রোটেক লিমিটেড এর প্রায় দেড় কোটি টাকা মূল্যের ২২০ টন এডিবল অয়েল (ভোজ্য তেল) নিয়ে ছেড়ে আসে ভারতীয় জাহাজ এমভি শান্তিপুর। গত ২৬ নভেম্বর বিকালে এমভি শান্তিপুর নামে ভারতীয় জাহাজটি আশুগঞ্জ নৌবন্দরের আর্ন্তজাতিক জেটিতে নোঙ্গর করেন।

জেলা কাস্টমস কর্মকর্তা ও নৌবন্দর কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে বুধবার বিকালে জাহাজটির সিলগালা খোলা হয় এবং ভোজ্য তেল জাহাজ থেকে খালাস করে ট্রাকে উঠানো হয়।বৃহস্পতিবার ভোরে ২৫টন তেল নিয়ে ২টি ট্রাক কড়া কাস্টমস নিরাপত্তা ব্যবস্থায় আশুগঞ্জ নৌবন্দর ছেড়ে যায় এবং বিকালে আখাউড়া স্থলবন্দরে নিয়ে ত্রিপুরায় নিয়ে যাওয়া হয়।ভারতীয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সোহাম কমার্শিয়াল এই তেলের এই ভোজ্য তেল পরিবহন করছে।

ভারতের কলকাতা থেকে ত্রিপুরা রাজ্যে তেল পরিবহনে বাংলাদেশের ৪‘শ কিলোমিটার নৌপথ ও ৫০ কিলোমিটার সড়কপথ এবং আশুগঞ্জ নৌবন্দর ও আখাউড়া স্থলবন্দর ব্যবহার করছে ভারত।তবে এসব পন্য পরিবহনে বাংলাদেশ ভয়েজ পারমিশন ফি,পাইলট অবস্থান ফি,ল্যান্ডিং ফি,চ্যানেল চার্জ,নিরাপত্তা ফি বাবদ প্রতিটনে ১৯২টাকা পেলেও কোন প্রকার শুল্ক দিচ্ছে না ভারত।

বাংলাদেশের লোডিং ঠিকাদার আদনান ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল জাহাজ থেকে পণ্য খালাস করে ভারতের আগরতলায় পৌছে দেয়ার কাজ করছেন।
এব্যাপারে আশুগঞ্জ নৌবন্দরের পরিদর্শক মো. শাহ আলম বলেন, গত ২৬ নভেম্বর বিকালে ২২০ টন ভোজ্য তেল নিয়ে এমভি শান্তিপুর নামে একটি ভারতীয় জাহাজ আশুগঞ্জ নৌবন্দরে নোঙর করে।কাস্টমস কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার ভোর ২ ট্রাকে ২৫টন তেল ত্রিপরায় গেছে।

সরকারী ছুটির জন্য শুক্র ও শনিবার ২দিন তেল পরিবহন বন্ধ থাকবে।রোববার থেকে পুনরায় তেল নেয়া শুরু করবে ভারত।আশুগঞ্জ নৌবন্দরের ব্যবসায়ী ও তেল পরিবহনের দায়িত্বে থাকা স্থানীয় ঠিকাদার তারেক জানান, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ত্রিপুরায় তেল পরিবহন শুরু হয়েছে। ২টি ট্রাকে ২৫ টন তেল ত্রিপুরায় পাঠানো হয়েছে।আমরা ২২০টন ভোজ্য তেল পরিক্ষামুলক ভাবে পরিবহন করছি।ব্যবসায়িক ভাবে সফল হলে আরো ১০ হাজার টন তেল পরিবহনের পরিকল্পনা রয়েছে।

এব্যাপারে জেলা রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুস সহিদ জানান ট্রান্সসিপমেন্ট চুক্তির আওতায় এসব ভোজ্য তেল আশুগঞ্জ নৌবন্দর থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ত্রিপুরায় নেয়া হচ্ছে।এই তেল পরিবহনে বাংলাদেশ প্রতিটনে ভয়েজ পারমিশন ফি,পাইলট অবস্থান ফি,ল্যান্ডিং ফি, চ্যানেল ফি, নিরাপত্তা ফি সহ প্রতিটনে ১৯২ টাকা পবে।তবে কোন প্রকার শুল্ক নেয়া হচ্ছে না।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares