Main Menu

নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানী বিরুদ্বে প্রতারণা অভিযোগ

আশুগঞ্জে ফুসে উঠছে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকরা। ন্যায্যমুল্য ও পুর্নবাসনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন।।

+100%-

প্রতিনিধি:: নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর মালিক পক্ষের বিরুদ্বে জমি নিয়ে অঙ্গিকার ভঙ্গ, প্রতারণার অভিযোগ ও ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের পুনর্বাসনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আশুগঞ্জ প্রেসক্লাবের হলরুমে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্ত্যবে এই অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকরা।চরচারতলা গ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ শতাধীক জমির মালিকদের পক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চরচারতলা ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মরহুম মজিবুর রহমান মজনু মিয়ার ছেলে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. আরিফুর রহমান জুয়েল। তবে এই অভিযোগ মানতে নারাজ নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর মালিক পক্ষ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, ২০০৯ সালে নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর মালিকের পক্ষে তার কোম্পানীর প্রকল্প পরিচালক মো. আরশাদ আমিন চরচারতলা গ্রামের প্রায় ১৮ একর ভুমি ক্রয় করেন। স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে এই জায়গা সংগ্রহ করা সময় নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদের পুনর্বাসন ও তাদের সক্ষম ছেলে মেয়েদের কাজের নিশ্চয়তা দেয়া হয়। এই কারণে চরচারতলা গ্রামের জমির মালিকগন প্রতি শতাংশ ২০ হাজার টাকায় নাম মাত্র মূল্যে তাদের ভিটে ভুমি নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর নামে লিখে দেন। কিন্তু এই জায়গা নিয়ে নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানী কর্তৃপক্ষ তাদের অঙ্গিকার রাখেনি। ক্ষতিগ্রস্থদের কাজ না দিয়ে তাদের সাথে প্রতারণা করে অন্যদের দিয়ে বর্তমানে অবকাঠামো কাজ করাচ্ছেন। শুধু তাই নয় বর্তমানে প্রতি শতাংশ ৩ লাখ টাকা দরে নতুন করে কিছু ভুমিও ক্রয় করেছেন।এসব বিষয় নিয়ে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলেও কোন প্রতিকার না পেয়ে জমি দাতারা ফুসে উঠেছে।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, আওয়ামীলীগ এর লোকজনের কাছ থেকে জমি সংগ্রহ করা হলেও বর্তমানে বিএনপি ও জামায়াত নেতাকর্মিদের দিয়ে অবকাঠামো কাজ করছেন মালিকপক্ষ। তাদের সাথে আতাত করে নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানী ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদের সাথে প্রতারণা করছেন। অবিলম্বে জমির ন্যায্যমুল পরিশোধসহ ক্ষতিগ্রস্ত ভুমির মালিকদের পুনর্বাসন করা না হলে এব্যাপারে প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।এতে কোন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটলে তার দায়ভার নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীকে নিতে হবে বলে হুমকী প্রদান করা হয়। তবে অভিযোগে বিষয়ে নিউ এশিয়া সিনথেটিক কোম্পানীর প্রকল্প পরিচালক আরশাদ আমিন জানান তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সঠিক না। তাছাড়া তাদের সাথে কারও অঙ্গিকার কিংবা চুক্তি ছিল না বলে তিনি দাবি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদের মধ্যে, চরচারতলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব খান,চরচারতলা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য মহরম আলী, ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিক আবু সিদ্দিক সহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares