Main Menu

নাসিরনগরে ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারনা-১৮ দলীয় জোটের প্রার্থী একাধীক

+100%-


মোঃ আব্দুল হান্নান:- দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পবিত্র ঈদুল আযহা ও শারদীয় দূর্গা পূঁজার শুভেচ্ছা জানিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীদের পোষ্ঠার ও বিলবোর্ডে চেয়ে গেছে নাসিরনগর। উপজেলার বিভিন্ন রাস্তাঘাট, হাটবাজার এমনকি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চোখে পড়ছে প্রার্থীদের বিভিন্ন পোষ্ঠার ও বিলবোর্ড। নির্বাচনের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীদের হাসি মুখে হাত বাড়ানোর মাত্রা ততই বেড়ে গেছে। প্রার্থীরা ইতি মধ্যেই বিভিন্ন জায়গা গণসংযোগ, পথ সভা, সমাবেশ, বিয়ে, বৌ-ভাত, সামাজিক ও বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগদান করতে শুরু করছে। এবার নাসিরনগর আসন থেকে এডঃ ছায়েদুল হক, এস এ কে একরামুজ্জমান (সুখন), মোঃ আহসানুল হক মাষ্টার, মোঃ রেজোওয়ান আহম্মেদ, এস এম সাফি মাহমুদ, এডঃ কামরুজ্জামান মামুন ও মাওলানা ইসলাম উদ্দিন (দুলাল) বিভিন্ন দল থেকে নির্বাচন করার কথা শোনা যাচ্ছে। এমনকি ইতি মধ্যে তারা শারদীয় দূগা পূঁজা ও পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে পোষ্ঠারের মাধ্যমে উপজেলা বাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে দোয়াও চেয়েছেন। এবার নাসিরনগর লড়াই হতে পারে আওয়ামীলীগ, বিজেপি ও বিএনপির মাঝে। বিভিন্ন তথ্য থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে, এ আসনে বর্তমানেও বিজেপি নির্বাচনী ভোট দৌড়ে  অনেকটা এগিয়ে রয়েছে। এলাকার সাধারণ ভোটার বিভিন্ন রাজনৈতিক নেত্রীবৃন্দ, কৃষক শ্রমিক, জেলে, খামার, খুমার, গাড়ী চালক সহ বিভিন্ন লোকজন এ তথ্য জানিয়েছেন। এক সময়ে জাতীয় পার্টির ঘাটি হিসাবে পরিচিত নাসিরনগর উপজেলা পরপর চারবার এডঃ ছায়েদুল হক আওয়ামীলীগ থেকে বিজয়ী হন । অনেকের ধারনা এ বছর সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিজেপি আবারো তাদের হারানো আসনটি ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । নাসির নগরের আওয়ামীলীগের এমপি এডঃ ছায়েদুল হক একজন প্রবীন রাজনীতিবিদ, নীতিবান, সৎচরিত্রের অধিকারী ও বয়োজ্যোষ্ট মুরুব্বি। তার সততা থাকলেও বিগত  সারে চার বছরের আওয়ামীলগের শাসনামলে  তার দলীয় কিছু সিনিয়র নেতার দুর্নীতি আর অপসাশনের কারনে আগামী নির্বাচনে প্রভাব পড়তে পারে বলে অনেকে ধারনা করছে। অপরদিকে বিজেপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান, জেলা বিজেপির আহবায়ক, বীর মোক্তিযোদ্বা সারা বাংলাদেশে সফল উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে স্বর্ণ ও একাদিক সনদ প্রাপ্ত নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আহসানুল হক মাষ্টারের জনপ্রিয়তা দিন দিন ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আগামী সংসদ নির্বাচনে ১৮ দলীয় জোটের মনোনয়ন পেলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয় লাভ করতে পারে বলে বিশ্বস্থ একাধীক নির্বযোগ্য সুত্রে জানা গেছে। অপরদিকে উপজেলা বিএনপিতে অভ্যন্তরীণ কোন্দল বিরাজ করছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।  উপজেলা বিএনপির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এম এন হান্নান ও তার অনুসারিরা একদিকে। সাবেক উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোঃ ইকবাল চৌধুরী সাধারণ সম্পাদক এডঃ কামরুলজ্জামান মামুন ও তার অনুসারিরা নিরব দশকের ভূমিকা পালন করছে। তাছাড়াও বিএনপির সাবেক এমপি ও প্রবীন বিএনপির নেতা এস এম সাফি মাহমুদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডঃ কামরুজ্জামান মামুন ও নির্বাচনের ঘোষনা দিয়েছে। ইসলামী যুক্ত ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাংগঠনিক সচিব আলহাজ মাওলানা এডঃ ইসলাম উদ্দিন (দুলাল)ও নির্বাচন করার কথা শোনা যাচ্ছে। অপরদিকে আগামী সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জাতীয় পার্টি(এরশাদ) প্রার্থী মোঃ রেজোওয়ান আহম্মেদ ও তার ছোট ভাই মোঃ শাহনূল করিম সেলিম, এলাকায় গণসংযোগ প্রচার প্রচারণা শুরু করেছে। রেজোওয়ান আহম্মেদের পক্ষে শাহনূল করিম সেলিম সাধারণ ভোটারদের আগ্রহ বাড়াতে বিভিন্ন গ্রামে হাট বাজারে রাস্তায় রাস্তায় গণ সংযোগ, কর্মী সমাবেশ, কেলেন্ডার বিতরণ সহ বিভিন্ন কৌশলে সাধারণ ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছে। জানা গেছে ২০ অক্টোবর উপজেলা যুবদলের সমাবেশে বক্তব্য দেওয়ার কালে ত্যাগী ও পদ বঞ্চিত  বিএনপি নেতাদের নিয়ে কটাক্ষ করে বক্তব্য দেওয়া ত্যাগী ও পদ বঞ্চিত নেতা নেতারা একত্রিত হয়ে প্রত্যেকটি ইউনিয়নে মিটিং সভা সমাবেশ ও পৃথক কমিটি করবে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। জানা যায় যুবদলের সমাবেশের পর থেকে বিএনপিতে অভ্যন্তরীণ কোন্দল চাঙ্গা হয়ে উঠছে।  বিএনপির পদ বঞ্চিত ও ত্যাগী নেতাকর্মীরা তাদের অবস্থান থেকে সুসংগঠিত হতে চলেছে। সব মিলিয়ে নাসিরনগর উপজেলা বি এন পি তে এখন চরম অন্তকোন্দল বিরাজ করছে ।



« (পূর্বের সংবাদ)



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares