Main Menu

প্রায় এক কোটি টাকা মুল্যের ভূমি জালিয়াতির অভিযোগ ! নাসিরনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যনে বিরুদ্ধে মামলা

+100%-

মোঃ আব্দুল হান্নান নাসিরনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ প্রতারনা করে প্রায় এক কোটি টাকা মুল্যের ভূমি আত্মসাতের অভিযোগে নাসিরনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, পুলিশের এক এস আই ,সাবরেজিষ্ট্রার দলিল লিখক,দুইজন সাহ্মী সহ ৮ জনের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ ১ম যুগ্ম জেলা জজ  আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মাধবপুর পৌরএলাকার নোয়াগাও গ্রামের মৃত লাল মোহন সাহার ছেলে মতিলাল সাহা বাদী হয়ে ১০ জুলাই মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় আসামীরা হচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার গুনিয়াউক ইউনিয়নের গুটমা গ্রামের গিরিজা রায়ের ৪ ছেলে। নাসিরনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রদীপ কুমার রায়, প্রনয় কুমার রায়, পুলিশেল এস আই বিপ্লব রায় ও ইটালি প্রবাসী বিকাশ রায় সহ মাধবপুরের সাবরেজিষ্ট্রার, দলিল লেখক ও ২ জন স্বাক্ষী। জানা গেছে প্রনয় কুমার রায় ইটালিতে লোক পাঠানোর ভূয়া আশ্বাস দিয়ে প্রতারণা করে সুমন শাহার নিকট থেকে ১০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বর্তমানে জেল হাজতে আটক রয়েছে। মামলা সুত্রে জানা যায় মাধবপুরে একতুুারপুর মৌজার এস এ ৫০৪ খতিয়ানের ১১নং দাগের মধ্যে ৪ শতক ভূমি মতিলাল সাহার কাছ থেকে ব্যবসায়ী প্রনয় কুমার রায়, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের ছোট ভাই , পুলিশের এস আই বিপ্লব কুমার রায় ও ইটালি প্রবাসী বিকাশ কুমার রায় খরিদ করেন। ক্রেতারা আপন সহোদর ভাই। পরবর্তীতে মাধবপুর সাবরেজিষ্ট্রী অফিসে বিজয়নগর থানার খেতাবাড়ি গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে দলিল লিখক মোঃ নাছিরুল ইসলাম খানের সহযোগিতায় জালিয়াতির মাধ্যমে ৪ শতক ভুমির পরিবর্তে প্রতারণা করে মতিলাল সাহার মোরশী ও খরিদা সূত্রে দখলীয় এস এ ৫০৪ খতিয়ানের ১৩ দাগের ২২ শতক একই খতিয়নের ১১ দাগের ৪ শতক, ১৮৬ দাগের ৪ শতক ও ১৮৫ দাগের ১০ শতক সহ মোট ৪০ শতক ভূমি যাহার  আনুমানিক মুল্য প্রায় এক কোটি টাকার উপরে হবে প্রতারণার মাধ্যমে ২৭ জানুয়ারী ২০১১ সনের ৪৭৩নং দলিলে রেজিষ্ট্রারী করিয়া নেয়। মতিলাল সাহা বিষয়টি জানতে পেরে উল্লেখিত ব্যক্তিদের আসামী করে ১ম বিজ্ঞ যুগ্ন জেলা জজ আদালত হবিগঞ্জে মামলা দায়ের করেন। ওই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares