Main Menu

নাসিরনগরে বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় আওয়ামীলীগ জনপ্রতিনিধি অনুপস্থিত

+100%-

এম.ডি.মুরাদ মৃধা, নাসিরনগর প্রতিনিধিঃ মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভায় অনুপস্থিত নাসিরনগরের স্থানীয় আওয়ামীলীগের জনপ্রতিনিধি। এ নিয়ে নাসিরনগর আওয়ামীলীগ ক্ষুদ্ব প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। এছাড়া সচেতন মহলও বিষ্ময় প্রকাশ করেন।

বুধবার ১১টায় প্রস্তুতি সভায় উপজেলা প্রশাসনের সকল অফিসার,সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা সহ সকল শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকলেও অনুপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামীলীগের দুজন জন প্রতিনিধি।

উপজেলা নির্বাহী অফিস সুত্রে জানা যায়,১৬ ডিসেম্ভর মহান বিজয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করার লক্ষ্যে এক প্রস্তুতি সভার আয়োজন করেন নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিয়াকত আলী। উক্ত প্রস্তুতি সভায় প্রশাসনের সকল অফিসার,সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা,ইউপি চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন সুধীজনদের চিঠি দিয়ে দাওয়াত করেন। এতে বিভিন্ন স্তরের প্রতিনিধিগন উপস্থিত থাকলেও কোন এক অদৃশ্য কারণে অনুপস্থিত উপজেলা আওয়ামীলীগ সেক্রেটারী ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার এবং যুবলীগ সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান অঞ্জন কুমার দেব।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিয়াকত আলী তার বক্তব্যে বলেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশে জন্ম না নিলে আমরা একটি স্বাধীন বাংলাদেশ পেতামনা।মহান বিজয়য়ে নতুন প্রজন্মকে সঠিক চেতনায় উজ্জীবিত করতে হবে।

এসময় প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ডাঃ রাফি উদ্দিন, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ আবু জাফর,জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান চৌধুরী, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হামিদা লতিফ পান্না, জেলা পরিষদ সদস্য রেবেকা খানম, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রদীপ কুমার রায়, যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বেলায়েত, আওয়ামীলী সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অরুণ জ্যোতি ভট্টাচার্য, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবুল হাশেম,গোকর্ণ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাসান খা,বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সুহরাব মোল্লা, সাবকে ছাত্রলীগ আহবায়ক নাসির উদ্দিন রানা,আওয়ামীলীগ নেতা বশির আল হেলাল, প্রেসক্লাব সহ সভাপতি আক্তার হোসেন ভূইয়া সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিগন।

আওয়ামীলীগের দুজন জনপ্রতিনিধির অনুপস্থিতির কথা জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, চেয়ারম্যান সাহেবকে দাওয়াত করা হয়েছে। উনার অফিসরে সহকারী চিঠি গ্রহণ করেছে। এমন কি আমি নিজে উনাকে মোবাইল ফোনে বলেছি প্রস্তুতি সভায় আসার জন্য কিন্তু তিনি আসেন নি। তিনি আমায় জানিয়েছেন উনার নাকি একটি গ্রাম্য সালিশে যেতে হবে। তাই তিনি উপস্থিত থাকতে পারবেন না।

উল্লেখ্য উপজেলা অফিস সূত্রে আরও জানা যায়, গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসেও উপস্থিত ছিলেন না উপজেলা আওয়ামীলীগ সেক্রেটারী এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার। তাকে বারবার ফোন করার পরও শোক দিবসে আসতে অপারগতা প্রকাশ করেন। বুড়িশ^র ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যেগে আয়োজিত এক সাংস্কৃকিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার জন্য জাতীয় শোক দিবসে আসতে পারেননি আওয়ামীলীগ এ জনপ্রতিনিধি।

এ ব্যপারে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলতে চাইলে ফোনটি বন্ধ দেখায়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares