Main Menu

নাসিরনগরে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে প্রতারক আটক

+100%-

নিজস্ব প্রতিবেদক:: জেলার নাসিরনগরে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসে গ্রাহকের মিটারের কাগজ জালিয়াতি করার সময় মেহের আলী নামক এক প্রতারককে আটক করেছে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করে।
২৫ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর ১২টার সময় নাসিরনগর উপজেলা পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তারা তাকে আটক করে পুলিশে সপোর্দ করে। আটক মেহের আলী উপজেলার ধরমন্ডল ইউনিয়নের দেওরত গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের ছেলে।
পল্লী বিদ্যুৎ অফিস সূত্রে জানা যায়,ধরমন্ডল ইউনিয়নের দেওরত গ্রামের মাহফুজ মিয়া গত বছরের ৪ জুন নতুন মিটারের জন্য আবেদন করে। আবেদনের কিছুদিন পর তার নামে মিটার বরাদ্দ দেয়া হয়। বর্তমানে সে নিয়মতি বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে আসছে। এদিকে মাহফুজ মিয়ার নামটি ফ্লুইড দিয়ে মুছে এ বছরের ২৪ জুন একই আবেদনের কাগজ দিয়ে মফিজুল ইসলামের নামে আরেকটি আবেদন করা হয় নতুন মিটারের। ২৫ সেপ্টেম্বর সকালে অফিসে এসে মেহের আলী অফিসের একজন কর্মচারীকে ধমক দিয়ে বলতে থাকেন কেন এতদিন ধরে নতুন মিটারের সংযোগটি দেয়া হচ্ছে না। তখন ওই কর্মচারী সহকারী ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করতে করতে বলেন। পরে পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের সহকারী ম্যানেজার হিমেল কুমার আবেদনের মূল কাগজপত্র যাচাই করে দেখতে পান নতুন আবেদনটি ভুয়া। তখন মেহের আলীকে আটক করে জিজ্ঞাসা করলে তিনি অপরাধের কথা স্বীকার করে বলেন প্রতিনিট নতুন মিটারের আবেদন বাবদ গ্রহকের কাছ থেকে সে তিন হাজার টাকা আদায় করে থাকেন। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আজগর আলী মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে বাংলাদেশ পল্লীবিদ্যুৎ আইনের ১৯১০ এর ২৮/১ অনুযায়ী সে দোষী হয় এবং ৪১ ধারা ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ডের নির্দেশ দেন।
নাসিরনগর পল্লীবিদ্যুৎ অফিসের সহকারী ম্যানেজার হিমেল কুমার সাহ বলেন, আটক মেহের আলী একজন প্রতারক। সে আমাদের অফিসে এসে প্রায় সময় বিভিন্ন আবেদন নিয়ে আসে। একই মিটারের জন্য দুজন ব্যক্তির আবেদন হওয়ায় আমাদের সন্দেহ হয়। পরে প্রতারণার বিষয়টি সে অকপটে স্বীকার করলে পুলিশে সপোর্দ করা হয়।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares