Main Menu

নাসিরনগরে নকল দুধ,দই ও আইসক্রীম তৈরির কারখানার সন্ধান।

+100%-

এম.ডি.মুরাদ মৃধা: “রাজধানী লাবাং” নামক কোম্পানীর স্ট্রীকার ব্যবহার করে চলছে নকল দুধ বাজার জাতকরণের অভিনব কৌশল। শুক্রবারে দিনের বেলায় একজন শ্রমিক সারাদিন কাজ করেন। আর রাত  হলে বেশ কয়েকজন শ্রমিক মিলে বিভিন্ন কোম্পানীর নকল স্ট্রীকার,উৎপাদন তারিখ,মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ নিজেরা বেশ যত্ন করে বসিয়ে নিচ্ছেন।
এ ভাবেই চলছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর সদরে  কৃষি ব্যাংকের সামনে ভোক্তা অধিকার আইন“ তোয়াক্কা না করে নকল দুধ,দই,আইসক্রীম তৈরির রমরমা ব্যবসা।
লাইসেন্স ছাড়া কোন খাদ্যদ্রব্য প্যাকেজিং করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। মিথ্যা বিজ্ঞাপন দ্বারা ক্রেতা সাধারণকে প্রতারিত করার জন্যে ২০০৯  সনে প্রণিত ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২৬নং ধারায় ,কোন ব্যক্তি কোন পণ্য বা সেবা বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অসত্য বা মিথ্যা বিজ্ঞাপন দ্বারা ক্রেতা সাধারণকে প্রতারিত করিলে তিনি অনূর্ধ্ব এক বৎসর কারাদন্ড, বা অনধিক দুই লক্ষ টাকা অর্থদন্ড বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হইবেন বলে বিধান রয়েছে।
অনুসন্ধানে দেখা গেছে, বাংলাদেশের বিভিন্ন কোম্পানীর নকল মোড়ক মাধবপুর এবং ভৈরবের বিভিন্ন প্রেস হতে ছাপিয়ে প্লাস্টিকের বোতলে মোড়িয়ে নিচ্ছে। তার পর হয়ে যাচ্ছে দেশের বিখ্যাত কোম্পানীর পণ্য। নাসিরনগর সদরে বাসা ভাড়া করে দিনদুপুরে চলছে এই অবৈধ ব্যবসা।
ক্ষতিকর রাসায়নিক কেমিক্যাল মিশ্রন করে তৈরি হচ্ছে আইসক্রিম,দুধ,দই সহ বিভিন্ন শিশু খাদ্য। কোম্পানীর নকল মোড়ক ব্যবহার করে  অবৈধ ভাবে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন দিনের পর দিন তিনি। মোড়ককৃত নকল পণ্যের মধ্যে “রাজধানী লাবাং দুধ” “নিউ রাজধানী দই”‘ নকল আইসক্রিম উল্লেখযোগ্য।

২৩ মার্চ  শুক্রবার জুমার নামায চলাকালিন সময়   নূরপুর গ্রামের মিনার মিয়ার নেয়া ভাড়া বাসায়  শ্রমিকদের দিয়ে অবৈধভাবে দুধ,দই,আইসক্রিম  জনপ্রিয় বিভিন্ন ব্রান্ডের  নাম ব্যবহার করে মোড়ক ব্যবহার করে প্যাকেজিং করতে দেখা যায়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমি ঢাকায় আছি। নাসিরনগর এসে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিব।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares