Main Menu

জমি সংক্রান্ত বিরুধের জের সরাইলে সালিশকারক খুন

+100%-

মোহাম্মদ মাসুদ : জমি সংক্রান্ত বিরুধের জের ধরে সরাইলের পল্লীতে হানিফ মিয়া (৫০) নামের এক সালিশকারককে  নৃশংস ভাবে খুন করা হয়েছে। গত রোববার গভীর রাতে উপজেলার চুন্টা ইউনিয়নের বড়বুল্লা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। খুনের পর তার লাশ বড়াইল এলাকার সরকারি খালে ফেলে দিয়ে পালিয়েছে দূর্বৃত্তরা। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, বড়বুল্লা গ্রামের মৃত আলী আফজল মিয়ার পুত্র হানিফ মিয়া ছিলেন একজন সালিশকারক। গত রোববার আছর নামাজের পর বাড়ি থেকে বের হয়ে রাতে আর ফিরেননি তিনি।  সোমবার ভোরবেলা কালিকচ্ছের চানপুর ও চুন্টার বড়াইল গ্রামের মাঝখানের একটি খালে হানিফ মিয়ার লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন। পরে তারা পুলিশকে খবর দেয়। সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক কামরুজ্জামান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করেন। নিহত হানিফের মাথার পেছনের দিকে, কপালের বাম পাশে, দুই পায়ের পেছনের দিকে ধারালো অস্রের সাহায্যে গুরুতর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ছাড়াও তার শরীরের অন্যান্য স্থানে অনেক জখম রয়েছে। হানিফের মাতা জাহানারা বেগম ও স্থানীয় একাধিক ব্যাক্তি অভিযোগ করে বলেন, গ্রামের ছোয়াব মিয়া ও কুতুব মিয়ার পরিবারের মধ্যে একটি জমির দখলকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। ছোয়াব মিয়ার পক্ষের ধারনা হানিফ মিয়ার জন্য তারা জমির দখলে যেতে পারছে না। ছোয়াবের স্বজন বাচ্চু, নান্নু, ইছমত মিলে ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে হানিফ মিয়াকে খুন করেছে। এস আই কামরুজ্জামান বলেন, ধারনা করা হচ্ছে হানিফকে নির্মম ও নৃশংস ভাবে খুনের পর লাশ ফেলে রাখা হয়েছে। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উত্তম কুমার চক্রবর্তী বলেন, ময়না তদন্তের জন্য নিহতের লাশ মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। কেউ এখনো অভিযোগ করেনি। তদন্ত করে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নিব।



« (পূর্বের সংবাদ)



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares