Main Menu

সরাইলে ধর্ষণ মামলা ধামাচাপা দিতে লুটতরাজ মামলার চেষ্টা

+100%-

মোহাম্মদ মাসুদ,সরাইল ।। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইলে ধর্ষণ মামলা ধামাচাপা দিতে লুটতরাজ মামলার চেষ্টা । ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নে । মামলার এজাহার সুত্রে জানাযায়, গত ২০শে জুন রাত ১২টার সময় পাকশিমুল ইউনিয়নের এক সন্তানের জননী কে মোস্তাকিন (২৫) নামের এক লম্পট জোর পুর্বক ধর্ষণ করে। মোস্তাকিন পাকশিমুল এলাকার হিরা মিয়ার ছেলে।
ভুক্তভোগী নারীর পরিবার সূত্রে জানাযায়, মোস্তাকিন প্রায়ই আসা-যাওয়ার পথে তাকে কুপ্রস্তাব দিতো। এক পর্যায়ে ঘটনার দিন ভুক্তভোগী নারী প্রকৃতির ডাকে সারা দিয়ে ঘরের বাহিরে গেলে আগে থেকেই উৎপেতে থাকা মোস্তাকিন ঘরে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করে। পরে সে মোবাইলে তা ধারণ করে রাখে, মোবাইলে ধারন করা ভিডিও আছে ভয় দেখিয়ে তাকে প্রায়ই তাকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি কাউকে জানালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। এই বিষয়ে মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে মোস্তাকিনের বাবা মা কে জানানো হয়। পরে তাদের বিয়ের প্রস্তাব দিলে তারা তালবাহানা শুরু করে দেয়। এক পর্যায়ে তাদের ছেলেকে বিয়ে দিতে অস্বীকার করে। এর মধ্যে ঐ নারীর গর্ভে সন্তান চলে আসে। ভুক্তভোগী নারীর পরিবার থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে মোস্তাকিন কে গ্রেফতার করে পুলিশ। মোস্তাকিন বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছে । এদিকে গ্রেফতারের ঘটনায় ভুক্তভোগী নারীর পরিবারকে উল্টো লুটতরাজ মামলায় ফাসানোর হুমকি দেয় মোস্তাকিনের পরিবার। গত শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ঘরে তালা দেয়া, মোস্তাকিনের পরিবারের কাউকে এসময় পাওয়া যায় নি। এলাকাবাসী ও আশ পাশের লোকজন বলেন এখানে ঘর ভাঙা বা লুটতরাজের কোন ঘটনা ঘটে নি।
এই বিষয়ে সরাইল থানা অফিসার ইনচার্জ শাহদাত হোসেন মুঠোফোনে বলেন, ভুক্তভোগীর পরিবার একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। বিবাদী পক্ষ থেকেও একটি ভাংচুর ও লুটতরাজের অভিযোগ করা হয়। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে বেড়িয়ে আসবে বলে জানান তিনি।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares