Main Menu

সরাইলে জায়গা নিয়ে বিরোধে ৫ চাচাতো ভাই মিলে প্রবাসীকে মারধরের অভিযোগ

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ৫ চাচাতো ভাই মিলে এক প্রবাসীকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গুরুত্ব আহত অবস্থায় ইকরাম হোসেন (২৪) নামের ওই প্রবাসীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। ইকরাম সরাইল উপজেলার পাকশিমুল গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে। রবিবার সকালে পাকশিমুল গ্রামের দক্ষিণপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

ইকরামের মামা রুবেল মিয়া জানান, ইকরামদের জায়গা তার চাচা নুরু মিয়া জোরপূর্বক দখল করতে পায়তারা করছিল। এপ্রিল মাসের শেষের দিকে ইকরাম কুয়েত থেকে দেশে এসে এ বিষয়টি মিমাংসা করতে উদ্যোগী হয়। আজ এ বিষয়কে কেন্দ্র করে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে স্থানীয়রা সালিশে বিষয়টি মিমাংসার আশ্বাস দিলে উত্তেজনা থামে। পরে সকাল ১১টার দিকে ইকরামকে একা পেয়ে তার চাচা নুরু মিয়ার ৫ ছেলে সামিনুল ইসলাম সুমন, সজল মিয়া, সুহেল মিয়া, সাগর ও সৌরভ তাকে মারধর করে । পরে স্থানীয়রা গুরুত্বর আহত অবস্থায় ইকরামকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে সেখানে ইকরাম মাথায় ও চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ইকরামের ৫ চাচাতো ভাইয়ের মধ্যে ২ জন শিক্ষকতা করেন। সামিনুল ইসলাম সুমন তেলিনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। অপরজন সজল মিয়া নাসিরনগরের বড়নগর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সজল মিয়া জানান, বাড়িতে বাকবিতন্ডা হচ্ছে খবর পেয়ে তিনি স্কুল থেকে বাড়ি ছুটে যান। তখন এলাকার লোকজন সালিশের কথা বললে সবাই শান্ত হোন। কিন্তু তারপরও ইকরাম ও তার সহযোগীরা বিরোধপূর্ণ জায়গায় ঘর তুলতে চাইলে তারা বাধা দেন। তখন হাতাহাতি হয়েছে। এতে তারাও আহত হয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।

সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আসলাম হোসেন জানান, এ বিষয়ে তারা থানায় এসেছিল। কিন্তু কোনপক্ষই অভিযোগ জমা দেয়নি।