Main Menu

কোকিল টেক্সটাইল মিলের কোটি টাকার যন্ত্রপাতি রাতের আঁধারে লুট

+100%-

রাতের আধারে পুলিশ পাহারায় সরিয়ে নেয়া হচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের মেড্ডা এলাকায় অবস্থিত কোকিল টেক্সটাইল মিলের ভারী যন্ত্রপাতি। খবর পেয়ে এলাকাবাসী  বাধা দিল্ওে সফল হয়নি তারা।  মালামাল সরিয়ে নেয়ার কারনও জানায়নি টেক্সটাইল কর্তৃপক্ষ। মিলের ভেতরের সকল ভারি যন্ত্রপাতি ট্রাকে তোলা হচ্ছে। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে  স্থানীয় লোকজন এসে বাধা দেয়। তবে  এসময় কারখানার ভেতরে পুলিশ  থাকায় এলাকাবাসি কিছু করতে পারেনি।

২৩ এপ্রিল রাতের ঘটনার কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, কারখানার বিভিন্ন ফ্লোরে ঢালাই করে বসানো ভারী যন্ত্রপাতি শাবল দিয়ে ভেঙে রাতের অন্ধকারে ট্রাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। স্থানীয়রা এসময় বাঁধা দিলেও পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তাদের তৎপরতায় তারা বাঁধা সরিয়ে নিতে বাধ্য হন। এসব মালামাল কি উদ্দেশে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে তারও কোনো জবাব পাননি তারা।

কোকিল টেস্কটাইল মিলের সাবেক শ্রমিক নেতা নিজাম উদ্দিন জানান ১৯৬৪ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের মেড্ডা এলাকায় ১১ দশমিক ৮ একর জায়গার ওপর প্রতিষ্ঠিত এই মিলটি অব্যাহত লোকসানের মুখে ১৯৯৮ সালে বন্ধ হয়ে যায়। এরপর বিগত ৪ দলীয় জোট সরকারের সময় মিলটি বেসরকারী খাতে ছেড়ে দেয়া হয়। কিন্তু দীর্ঘ সময়েও মিলটি চালূ করা সম্ভব হয়নি। মিলের ম্যানেজার কফিল উদ্দিন জানিয়েছেন , মিলটি চালূ করতেই পুরতন যন্ত্রপাতি বিক্রি করে দিয়ে নতুন যন্ত্রপাতি আনা হচ্ছে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী মিলটি চালূর আহবান জানিয়ে বলেন কোকিলের সম্পদ লুট হয়ে থাকলে তিনি এব্যাপারে ব্যবস্থা নেবেন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক ড.মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন মিলটি চালুর ব্যাপারে এখন থেকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদারকী করা হবে ।