Main Menu

ঢিলেঢালা অবরোধ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা হতাশ

+100%-

সুমন নূর : একতরফা নির্বাচন প্রতিহত করতে রাজপথে নামতে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার দিক নির্দেশনা মানছেনা জেলার বিএনপি’র নেতা কর্মীরা। ৪র্থ দফা অবরোধের ৩য় দিন গত বৃহস্পতিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহর অনেকটাই শূণ্য ছিল দলীয় নেতা কর্মীরা।

বরং আগের চেয়েও জেলা শহরে বিভিন্ন ধরণের যানবাহন চলাচল ছিল অনেক বেশী। মানুষের জীবন যাত্রাও ছিল অনেক বেশী। শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অবস্থান নেয়ায় কোথাও কোনো মিছিল কিংবা পিকেটিং করতে পারেনি ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। অবরোধ সমর্থনে নেতা কর্মীরা মাঠে না নামায় সরকার বিরোধী আন্দোলনের সফলতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাসস্ট্যান্ড গুলো থেকে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঢাকা-সিলেট ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে যাত্রীবাহী যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

হতাশগ্রস্থ সাধারণ কর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জেলা বিএনপির নেতৃত্বের উপর। জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক জহিরুল হক খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, ছাত্রদলের সহ-সভাপতি  কার্জন বর্তমানে জেল হাজতে। তাদের অবর্তমানে দলের সিনিয়র নেতারা সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারছে না। ছাত্রদলের সভাপতি  শামীম মোল্লা এবং সাধারন সম্পাদক ইয়াছিন মাহমুদ হুলিয়া মাথায় নিয়ে প্রকাশ্যে বেশিক্ষন থাকতে পারছেন না।  সরকার বিরোধী আন্দোলনে তাদের বিকল্প হিসাবে কোন নেতাই নিজেদেরকে তুলে ধরতে পারছেন না।  এ কারনেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরকার বিরোধী আন্দোলনের গতিশীলা হচ্ছে না। বিএনপির গুটিকয় নেতা কর্মীরা দিন দুপুরে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তৃর্নমূল নেতা কর্মীরা বাড়ী ঘরে থাকতে পারছেলনা ,  জেলা বিএনপি’র এক নেতা বলেন, বর্তমান আওয়ামী সরকারের মামলা ও গ্রেফতারের  অত্যাচারে আমাদের নেতাকর্মীরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। দেশের গণতন্ত্র রক্ষায় মিছিলটুকো করতে পারছে না নেতাকর্মীরা। মিথ্যা অজুহাতে তাদের নামে মামলা দায়ের করা হচ্ছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares