Main Menu

মেজর জহিরের শোকসভায় তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

+100%-

প্রতিবেদক : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির অন্যতম নেতা, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানী মেজর জহির ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একনিষ্ট একজন সৈনিক। দেশের প্রতি ভালোবাসার টানে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। যুদ্ধের পর দেশের সার্ভভৌমত্ত রক্ষায় সেনাবাহিনিতে যুক্ত হয়েছেন। ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে সেনাবাহিনি থেকে চাকরিচুত্য হওয়ার পর জনতার মানুষ মেজর জহির জনতার সেবার করার জন্য জনতার সংগঠন আওয়ামীলীগে যুক্ত হয়েছেন। তিনি বলেন আপাদ মস্তক রাজনীতিবিদ মেজর জহির আজীবন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গঠনে কাজ করে গেছেন। ক্ষুদা-দারিদ্র-মুক্ত গনতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ গঠনে তিনি ছিলেন নিবেদিত প্রান, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবিতে তিনি ছিলেন বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর। বক্তব্যে তিনি আরও বলেন আমরা যারা আজ মেজর জহিরের মৃত্যুতে শোকাহত আমাদের এ শোক কে শক্তিতে রুপান্তরিত করে মেজর জহিরে অসম্পূর্ন স্বপ্ন কে বাস্তবায়ন করতে হবে। আর এজন্য প্রধান অতিথি সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদভুদ্ধ হয়ে আগামী নিবাচনে নৌকা প্রতিকে ভোট দেওয়ার আহবার জানান। এসময় তিনি  অরো বলেন  সকল ষড়যন্ত্রকে ছিন্ন করে যথাময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নৈরাজ্য করে নির্বাচন বানচাল করা যাবে না। তিনি নির্বাচনে অংশ গ্রহন উৎসব মুখর নির্বাচন অনুষ্ঠানে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। মোকতাদির চৌধুরী শনিবার বিকাল ৩ টায় জাতীয় বীর আব্দুল কুদ্দুস মাখন পৌর মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর সেনানী, খেতাব প্রাপ্ত বীরমুক্তিযোদ্ধা মেজর (অবঃ) জহিরুল হক খান বীরপ্রতিক এর আকষ্মিক মৃত্যুতে  নাগরিক শোকসভা বাস্তবায়ন কমিটি উদ্যোগে আয়োজিত নাগরিক শোকসভায়  প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরক্ত বক্তব্য প্রদান করেন।

সভায় নাগরিক শোক সভা বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক, জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, জেলা পরিষদ প্রশাসক এডঃ সৈয়দ একেএম এমদাদুল বারী, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক উপ মন্ত্রী এডঃ হুমায়ন কবির, নাগরিক শোক সভা বান্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব, জেলা আওয়ামীলীগ ও ১৪ দলের সমন্বয়ক বীরমুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু, যুগ্ন সম্পাদক সাবেক পৌর চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, সরাইলের প্রয়াত আওয়ামীলীগ নেতা ইকবাল আজাদের সহ ধর্মীনী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনিত প্রার্থী বেগম শিউলী আজাদ। সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বশির উল্লাহ জুরু, জেলা জাসদ সভাপতি এডঃ আক্তার হোসেন সাইদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হেলাল উদ্দিন, মজিবুর রহমান বাবুল, মহিলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মিনারা আলম, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান শহীদ, ন্যাপ সাধারণ সম্পাদক ওমর আলী, জেলা ওয়ার্কাস পাটির সাধারণ সম্পাদক এডঃ কাজী মাসুদ, সমাবেশে মরহুমের স্মৃতিচারন করে  অন্যানের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন জেলা বার এসোসিয়েশনের সভাপতি এডঃ নাজমুল হোসেন, জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি এডঃ আব্দুস সামাদ, সুজন সভাপতি প্রফেসর মোখলেছুর রহমান খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া গবেষক মুহাম্মদ মুসা, সাহিত্য একাডেমির সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাবিবুল্লাহ বাহার, বিজয় নগর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এডঃ জহিরুল হক ভুইয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো রফিকুল ইসলাম, যুবলীগ সভাপতি এডঃ মাহবুবুল আলম খোকন, জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি মোঃ কাওছার আহমেদ, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আলহাজ্ব এডঃ লোকমান হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম. সাইদুজ্জামান আরিফ, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন দুলাল, জেলা ওলামালীগ সভাপতি মাওঃ মনির, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ ও মরহুমের ছোটভাই জাহাঙ্গীর কবির খান দুলাল।

সভায় পবিত্র কোরআন তেলওয়াত ও মোনাজাত পরিচালনা করেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ জাকির আহমেদ।

সভা কার্যক্রম উপস্থাপনা করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, সমটত বার্তা সম্পাদক মনজুরুল আলম।

সভাপতির বক্তব্যে পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেন, মেজর জহিরুল হক খান বীরপ্রতীক ছিলেন, একজন সদালাপী, সদাহাস্য, অপরিমেয় ধর্য্য ও একজন জনহিতৈসি প্রকৃতির মানুষ। ছোট-বড় সকলের সাথে তার সম্পর্ক ছিল বন্ধুর মত। নানা কাজে সবাইকে সহযোগিতা করেছেন ভাইয়ের মত। পরামর্শ দিয়েছেন অভিভাবকের মত। তাঁর মৃত্যুতে জেলাবাসী হারিয়েছে নানা বিপদে আপদে পাশে থাকা একজন অকৃতিম বন্ধুকে। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশ হারিয়েছে একজন শ্রেষ্টসন্তানকে। তাঁর মৃত্যুতে যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে তা অপূরনীয় আখ্যায়িত করে তিনি আরো বলেন মেজর জহিরুল হক খান বীরপ্রতিক ছিলেন আওয়ামীলীগ রাজনীতির একজন একনিষ্ঠ কর্মী তাঁর মৃত্যুতে জেলা আওয়ামীলীগ হারিয়েছে একজন প্ররিশ্রমি রাজনৈতিক কর্মী ও ত্যাগী জননেতা কে। সভায় মরহুমের  বিদেহী আত্বার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মরহুমের শোকাহত পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি গভির সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

নাগরিক শোকসভায় জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন, সামাজিক-সাংষ্কৃতিক সংগঠন, সাংবাদিকবৃন্দ ও ব্যাবসায়ী সংগঠন সহ বিভিন্ন স্তরের গুনগ্রাহী নাগরিক বৃন্দ সহ প্রায় পাচঁ হাজার জনতা অংশ গ্রহন করেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares