Main Menu

অবৈধ হরতালের প্রতিবাদে জেলা আওয়ামীলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

+100%-

 

প্রতিবেদক : বিএনপির-জামাত জোটের ডাকা ৮৪ ঘন্টার অবৈধ হরতাল ও দেশ ব্যাপি ভাঙ্গচুর, অগ্নি সংযোগ, বোমাবাজির প্রতিবাদে হরতালের প্রথম দিনে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামীলীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন। রবিবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন পাড়া মহল্লা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতা কর্মীরা পৃথক পৃথক মিছিল নিয়ে স্থানীয় পৌর আধুনিক সুপার মার্কেটে অবস্থান করে। সকাল ১১ টায় নেতা কর্মীদের সম্মিলিত অংশ গ্রহনে একটি প্রতিবাদ মিছিল শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে পৌর আধুনিক সুপার মাকের্টে এসে এক সমাবেশ করে।

জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন এর সভাপত্বিতে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগ ও ১৪ দলের সমন্বয়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু, সহ সভাপতি এডঃ তফছিরুল ইসলাম, যুগ্ন সম্পাদক সাবেক পৌর চেয়াম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, জাতীয় পরিষদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কুতুব হোসেন, জেলা জাসদ সভাপতি এডঃ আক্তার হোসেন সাইদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হেলাল উদ্দিন। জেলা ওয়ার্কাস পাটির সাধারণ সম্পাদক এডঃ কাজী মাসুদ, শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি আবিদুর রহমান দেওয়ান, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস, সংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন সরকার, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ মালেক, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি এডঃ লোকমান হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম. সাইদুজ্জামান আরিফ, সহ সভাপতি মোঃ ইকবাল হোসেন, সদর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মোঃ আলী আজম, যুগ্ন যুবনেতা গোলাম মোস্তফা রাফি, শহর যুবলীগের সভাপতি আমজাদ হোসেন রনি, শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি এডঃ কামরুজ্জামান অপু, সাবেক ছাত্রনেতা আল ফয়সাল, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল হেসেন রুবেল, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক শেখ রাসেল, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন শোভোন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান বাবুল।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেন, আওয়ামীলীগ নেতৃতাধীন মহাজোট ক্ষমতায় আছে এবং আগামী সংসদ নির্ববাচন পর্যন্ত তারা সাংবিধানিক উপায়েই ক্ষমতায় থাকবে। পেছনের দরজা দিয়ে, নির্বাচন ছাড়া কোন অপশক্তি যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে সেই জন্য বাংলাদেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। তিনি বিএন পি-জামাত জোটের ঐক্যবদ্ধ নৈরাজ্যর মোকাবেলায় স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ আন্দলোন গড়ে তোলার জন্য নেতা কর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

বীরমুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু  বলেন, বিএনপি আজ জনবিছন্ন, তাই তারা দেশে হরতাল দিয়ে সারাদেশে লুটপাট বোমাবাজি, ভাঙ্গচুর অগ্নি সংযোগ সহ নৈরাজ্য সৃস্টি করে বাকাঁ পথে ক্ষমতায় আসতে চায়। কিন্তু বাংলার জনগন তাদের এই অসৎ উদ্দেশ্য কোন দিনও সফল হতে দিবে না। তিনি বিএনপির হরতালকে প্রত্যাখান করার জন্য সাধারণ জনতাকে ধ্যনবাদ জানান। এবং হরতালের সময় নৈরাজ্য ঠেকাতে রাজপথে থাকার জন্য আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতাকর্মীদের অভিনন্দন জানান।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares