Main Menu

মানুষ হত্যা করে নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা জনগন সফল হতে দেবে না.. আওয়ামীলীগ

+100%-

বিএনপি-জামাত ১৮ দল জোটের হরতালের নামে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, বোমা, হামলা অগ্নি সংযোগ, ভাঙ্গচুর, লুটপাট ও মানুষ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ১৪ দল। শুক্রবার বিকালে জাতীয় বীর আব্দুল কুদ্দুস মাখন পৌর মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত উক্ত বিশাল সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, জেলা পরিষদ প্রশাসক এডঃ সৈয়দ এ.কে.এম.এমদাদুল বারী। বক্তব্য রাখেন জেলা ১৪ দলের সমন্বয়ক  জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মেজর (অবঃ) জহিরুল হক খান বীরপ্রতিক, সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু, এডঃ তফছিরুল ইসলাম, জেলা জাসদ সভাপতি এডঃ আক্তার হোসেন সাইদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, মজিবুর রহমান বাবুল, জেলা ওয়ার্কাস পাটির সাধারণ সম্পাদক এডঃ কাজী মাসুদ, জেলা কমিনিউষ্ট পার্টির সদস্য কমরেড নজরুল ইমলাম, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওমর আলী। জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হেলাল উদ্দিন এর পরিচালনায়  সমাবেশে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা আওয়ামীলগ সভাপতি মিনারা আলম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি হাবিবুল্লাহ বাহার, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো রফিকুল ইসলাম, জেলা যুবলীগ সভাপতি এডঃ মাহবুবুল আলম খোকন, কৃষক সভাপতি কাউন্সিলর ছাদেকুর রহমান শরীফ, শ্রমিক লীগের সভাপতি মোঃ কাউছার আহমেদ, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি আলহাজ্ব এডঃ লোকমান হোসেন, ওলামালীগের সাধারন সম্পাদক মুফতি নুরুল ইসলাম, নারীনেত্রী ফজিলাতুন্ননেসা, যুব মহিলা লীগের যুগ্ন আহবায়ক মুক্তি খান, ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ। কোরআন তেলওয়াত করেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিয়ষক সম্পাদক মাওলানা মোঃ জাকির। সমাবেশে ১৪ দল নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিএনপি নেত্রীকে  নির্বাচন কালিন সরকার ব্যাবস্থা নিয়ে আলোচনার করার  প্রস্তাব দিয়েছেন। কিন্তু তারা গতবার ক্ষমতায় থাকতে তার দূর্নীতি করে দেশের মানুষের সাথে বারবার প্রতারনা করেছে। তাই তারা আলাচনায় আসতে ভয় পায়। বোমা হামলা অগ্নি সংযোগ ভাঙ্গচুর লুটপাট ও মানুষ হত্যার তাদের এখন নিত্য দিনের ঘটনা । এসবের মাধ্যমে আলাচনায় না এসে হরতাল দিয়ে সন্ত্রাস নৈরাজ্য করে বাঁকা পথে ক্ষমতায় আসতে চায়। বক্তরা আওয়ামীলীগ কে এশিয়া মহাদেশের সবচেয় বড় রাজনৈতিক দল আখ্য দিয়ে বলেন, আওয়ামীলীগ এবার ক্ষমতায় এসে দেশের মানুষের ভাগ্য বদল করেছে। তারা দেশের মানুষের মন জয় করে আবারও ক্ষমতায় আসবে। বক্তরা আরো বলেন, ২৫ তারিখ বিএনপি নৈরাজ্য সৃষ্টি অবৈধ ভাবে ক্ষমতা দখল ঘৃন্য পায়তারা করেছিল। কিস্তু এদেশের জনগন সেই ষড়যন্ত্র কঠোর হস্তে প্রতিরোধ করেছে। আওয়ামীলীগ নেতৃতাধীন মহাজোট ক্ষমতায় আছে এবং আগামী সংসদ নির্ববাচন পর্যন্ত তারা সাংবিধানিক উপায়েই ক্ষমতায় থাববে। পেছনের দরজা দিয়ে, নির্বাচন ছারা কোন অপশক্তি যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে সেই জন্য বাংলাদেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। নেতৃবৃন্দ বিএনপি-জামাত জোটের ঐক্যবদ্ধ নৈরাজ্যর মোকাবেলায় স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ আন্দলোন গড়ে তোলার জন্য নেতা কর্মীদের প্রতি আহবান জানান। সমাবেশে পৌরএলাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডের ১৪ দল কয়েক হাজার নেতা কর্মী অংশ গ্রহন করে। এসময় তারা বিএনপির ধ্বংশাত্বক র্কাযাকলপের বিরুদ্ধে নানা শ্লোগানে শ্লোগনে আকাশ বাতাশ মুখরিত করে। সমাবেশে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর- ৩ আসনের সংসদ সদস্য  বীর মুক্তিযোদ্ধা র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী শারিরিক সুস্থতার জন্য মোনাজাত করা হয়।(প্রেস বিজ্ঞপ্তি)






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares