Main Menu

ঈদকে সামনে রেখে শহরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধি

+100%-

শামীম উন বাছির : ঈদকে সামনে রেখে শহরে  আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মূলত রোজার শুরু থেকেই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতা শুরু হয়েছে। প্রতিবছর রোজার শুরু থেকে চান রাত পর্যন্ত বিভিন্ন জেলায়  পরিস্থিতির অবনতি হলেও এবার তা হবে না বলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে।জানা যায়, শহরের প্রায় সবগুলো মার্কেটে  আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় রোজার মাসে পাঁচগুন বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি শহরের যেসব এলাকায় ঈদকে সামনে রেখে ছিনতাই, পকেটমারের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ বেড়ে যায় সেসব এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সংখ্যা দ্বিগুন বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়া সাদা পোশাকদারী আইন শৃঙ্গলা বাহিনীর কর্মকর্তরাশহরের  বিভিন্ন বিপনী মাকের্টে অভিযান অব্যাহত রাখছে। শহরের নিউ সুপার মার্কেট, পৌর আধুনিক সুপার মার্কেট, আশিক প্লাজা সহ অধিকাংশ মার্কেটগুলোতে পুলিশ সদস্য মোতায়ন করা হয়েছে।আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এসব সদস্য রোজার শুরু থেকে তাদের দায়িত্ব পালন করছে এবং ঠিক ঈদের আগের দিন অর্থাৎ চাঁদ রাত পর্যন্ত তারা তাদের দায়িত্ব পালন করবে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রব জানান, জানান,  শহরে বেশ কয়েকটি মার্কেট রয়েছে। এসব মার্কেটে কোনভাবেই যাতে আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতির অবনতি না হয় সে ব্যাপারে বিচক্ষনতার সহিত কাজ করছে থানা পুলিশ।শহর ও শহরতলী থেকে বিপুল পরিমানে মহিলা ও শিশুদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই  এই মার্কেটগুলোতে ২৪ ঘন্টা করে পুলিশ পাহাড়া দিচ্ছে। সদর মডেল থানার ওসি মো: আব্দুর রব  জানান, জনগণের জীবন মাল রক্ষার্থে আমরা কাজ করে থাকি। বিশেষ করে রোজার শুরু থেকে ঈদের চাঁদ রাত পর্যন্ত শহরে ছিচকে  সন্তাসীদের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ বেড়ে যায়, আর এসব সন্ত্রাসীদের ফাঁদে পড়ে বিশেষ করে নারীরা। এবার আমাদের লক্ষ্য রয়েছে শহরে যেসব মার্কেট রয়েছে সেসব মার্কেটে একটিও অপ্রীতিকর কর্মকান্ড যাতে সংঘটিত না হয়।  শহরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য পুলিশের পাশাপাশি  আনসারও নিয়োজিত রয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বিভিন্ন মহল্লায় বেশ কিছু ফ্যাশন হাউজ ও বিউটি পার্লার গড়ে উঠেছে এবং এসব এলাকায় নারী ও শিশুদের ভীড় লেগে থাকে। এসব এলাকায় টহল পুলিশের উপস্হিতি একান্ত প্রয়োজন বলে মনে করেন কেনা কাটা করতে আসা অনেক ক্রেতা। এ বিষয়ে সদর থানার ওসি জানান, জনগণের কোথাও কোন সমস্যা হওয়া মাত্র আমরা যদি জানতে পারি তাৎক্ষনিক আমরা সে এলাকায় গিয়ে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares