Main Menu

সামনে ঈদ:: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পাদুকা শিল্পীরা ব্যস্ত

+100%-
padukaডেস্ক ২৪:: ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ততা বেড়ে গেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পাদুকা শিল্পীদের। ৩শতাধিক জুতা তৈরির কারখানায় প্রায় ৭হাজার শ্রমিক দিন-রাত কাজ করছেন। আর এ সব কারখানার তৈরি জুতা জেলার চাহিদা মিটিয়ে যাচ্ছে দেশের সর্বত্র।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৯৮৪ সালের দিকে দু’একটি পাদুকা কারখানা গড়ে ওঠে। পরবর্তীতে উদ্যোক্তারা এ শিল্পের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে গড়ে তোলে নতুন নতুন কারখানা। বর্তমানে এই জেলায় ৩শতাধিক পাদুকা কারখানা রয়েছে। আর এসব কারখানায় প্রায় ৭হাজার শ্রমিক কাজ করছেন। শহরের পশ্চিম মেড্ডা পীরবাড়ি বাজার, শহরতলীর নাটাই বটতলী বাজার, ভাটপাড়া, রাজঘর, জনতা মার্কেট, অষ্টগ্রাম, ভাদুঘরে গড়ে উঠেছে ওইসব পাদুকা কারখানা। নতুন নতুন ডিজাইন, আধুনিক, মানসম্মত ও রুচিশীল জুতা তৈরি হওয়ায় দেশের বিভিন্ন জেলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তৈরি জুতার বাজার গড়ে উঠেছে। এখানকার লালা, রকিস, রাকিব, জিপসি, ইপসি, সিটি, দিশাসহ নানা নামে জুতার রয়েছে ব্যাপক চাহিদা।
রাকিব সুজের মালিক হাকিম মৃধা জানান, আমাদের তৈরি জুতা স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, কুলাউড়া, হবিগঞ্জ, কুমিল্ল­া, চাঁদপুর, ফেনী, ভৈরব, কিশোরগঞ্জ, চট্টগ্রাম, টাঙ্গাইল, জামালপুর, ময়মনসিংহ, নরসিংদী ও নেত্রকোনা যাচ্ছে। তাছাড়া ঢাকার অভিজাত মার্কেটেও পাওয়া যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জুতা।
কারখানার মালিকরা জানান, চামড়া, রাবার, সোল, ফোম ও রেক্সিন দিয়ে বিভিন্ন ডিজাইনের জুতা তৈরি করা হয়। তবে এসব উপকরণ স্থানীয় বাজারে পাওয়া যায় না বলে অনেক সময় উত্পাদন ব্যাহত হয়। বর্তমানে জুতা তৈরির উপকরণের দাম অনেক বেড়ে গেছে।





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares