Main Menu

যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাতজন যুবনেতা

+100%-

মোঃ তারিকুল ইসলাম সেলিমঃ আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাতজন যুবনেতা স্থান পেয়েছেন। গত বছর ২৩ নভেম্বর জমকালো কংগ্রেসের মধ্যে দিয়ে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল নির্বাচিত হন। সম্মেলনের প্রায় এক বছর পর গত শনিবার ১৩ পদ খালি রেখে যুবলীগের ২০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে । এর আগে বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে অবস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা যুবলীগের সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের কাছে হস্তান্তর করেন।

আওয়ামী যুবলীগের নতুন কমিটিতে সহ-সম্পাদক হলেন আলামিনুল হক আলামিন। মজিবুর রহমান ও এবিএম আরিফ হোসেন নির্বাহী সদস্য হয়েছে। আশিকুর ইসলাম, নাজিম উদ্দিন, এইচ এম আল আমিন আহমদ ও শিরিন শিলা সদস্য নির্বাচিত হয়েছে। তারা সবাই দলের দুঃসময়ে সংগঠনের নেতৃত্ব দিয়েছে।

আলামিনুল হক আলামিন ঢাকা মহানগর দক্ষিন ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ছিলেন। রাজনীতির মাঠে সক্রিয়তার কারণে সব সময় তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। তিনি যুবলীগের গত কমিটিতেও সদস্য ও সহ সম্পাদক ছিলেন। এবারও তিনি স্বপদেই আছেন।

মুজিবর রহমান যুবলীগের গত কমিটিতে নির্বাহী সদস্য ছিলেন। সাংগঠনিক কর্মকান্ডে নিজে সৎ থাকায় এবারও তিনি তাঁর স্বপদে বহাল আছেন।

এবিএম আরিফ হোসেন প্রতিকুল পরিস্তিতিতে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (লিয়াকত-বাবু) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (রিপন-রোটন) কমিটির যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সাফল্যেতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। রাজপথের অকুতোভয় এই সৈনিক বিএনপি জামাতের শাষণভাগে বার বার গ্রেফতার হয়ে কারানির্যাতিত হয়েছেন। যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য পদে তাকে মূলায়িত করেছে।

আশিকুল ইসলাম পরিচ্ছিন্ন ছাত্রনেতা হিসেবে তাঁর সুনাম রয়েছে। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (সোহাগ-নাজমুল) কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থ সম্পাদক ছিলেন। পরিচ্ছিন্ন রাজনীতি চর্চ্চা করায় যুবলীগের কমিটিতে তিনি স্থান পেয়েছেন।

নাজিম উদ্দিন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি সদস্য ছিলেন। রাজনীতির নানা বাঁকে তিনি সংগঠনকে গতিশীল করার লক্ষে কাজ করেছেন। দলের প্রতিটি আন্দোলনে তিনি রাজপথে ছিলেন। এবার তাকে আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য করা হয়েছে।

এইচ এম আল আমিন আহমদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ওয়ান ইলিভেনের মতো কঠিন পরিস্থিতে রাজপথে তাঁর দুর্দান্ত নেতৃত্বদান বিরোধী মতের মানুষের কাছেও প্রশংসিত হয়েছেন। এবার তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে স্থান পেয়েছেন।

শিরিন শিলা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সহ-সম্পাদক ছিলেন। এবারের যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে খুবই কম সংখ্যক নারী সদস্যের মধ্যেই তিনি অর্ন্তভুক্ত হয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এই সাতজন নেতাকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত করা জেলাবাসি আনন্দিত হয়েছে। আগামীতে স্বাধীনতার পক্ষে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের গড়তে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তারা ভূমিকা রাখবে।