Main Menu

ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা :: ব্রাহ্মণবাড়িয়া-ঢাকা বাস কাউন্টারে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

+100%-
17_34_52_01_5ªª_31_nad4yডেস্ক ২৪:: ঈদুল ফিতর উপলক্ষে একটি চক্র অতিরিক্ত হারে ভাড়া আদায় করছে। ঈদ-পরবর্তী সময়ে প্রতিটি পরিবহন যাত্রীদের কাছ থেকে ৫০ থেকে ৮০ টাকা বেশি দরে টিকিট বিক্রি করছে। তবে টিকিটের গায়ে তারা আদায় করা ভাড়ার টাকার পরিমাণ লিখছে না।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-ঢাকা পথে মোট ছয়টি পরিবহনের বাস চলাচল করে। এর মধ্যে বিআরটিসির ভাড়া ২২০ টাকা। সোহাগ, তিশা ও রয়েল পরিবহনের ভাড়া ২০০ টাকা করে নির্ধারণ করা আছে। এ ছাড়া উত্তরা ও তিতাস পরিবহনের ভাড়া ১৭০ টাকা।

এ অবস্থায় অতিরিক্ত দামে টিকিট বিক্রির অভিযোগে গতকাল সোমবার দুপুরে পৈরতলার চারটি কাউন্টারকে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সোহেল রানা পৌর এলাকার পৈরতলা বাসস্ট্যান্ডে এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

আদালত সূত্র জানায়, উত্তরা ও রয়েল পরিবহনকে পাঁচ হাজার টাকা করে এবং সোহাগ ও তিশা পরিবহনকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। তবে এ সময় বিআরটিসি ও তিতাস পরিবহনের কাউন্টারের লোকজন সটকে পড়ে। অভিযানের সময় বিআরটিএর কর্মকর্তা ও পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সম্প্রতি জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুসারে পৌর এলাকার ভাদুঘর থেকে সব বাস ছেড়ে যাওয়া ও সেখান থেকেই টিকিট বিক্রির কথা। কিন্তু একটি চক্র সে সিদ্ধান্ত অমান্য করে পৈরতলা থেকে যাত্রী ওঠাচ্ছে ও টিকিট বিক্রি করছে।

তবে এ বিষয়ে উত্তরা পরিবহনের মালিক মো. কামরুজ্জামান কাজল বলেন, ‘কাউন্টারে থাকা লোকজন আমাদের কথা না শুনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে।’ উত্তরা পরিবহনের চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা বলেন, ‘গাড়ির মালিকরা এতে লাভবান নয়। যাত্রীদের কাছ থেকে জোর করে বেশি ভাড়া আদায় করা হলেও মালিকরা লাভবান নয় কিংবা জড়িতও নয়।’

সোহাগ পরিবহনের সহকারী ব্যবস্থাপক শিমুল কুমার ঘোষ বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়া-ঢাকা পথে আমাদের নির্ধারিত ভাড়া ২০০ টাকা। কিন্তু কাউন্টারে থাকা লোকজন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে ভ্রাম্যমাণ আদালত জরিমানা করেছেন।’






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares