Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় হামলা, মামলা প্রত্যাহার করতে আসামি পক্ষের হুমকি

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের কোড্ডা গ্রামে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় প্রতিপক্ষের উপর হামলা চালিয়ে ঘর-বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ৩ সেপ্টেম্বর কোড্ডা গ্রামের দক্ষিণ পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত ৪ জন জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এরা হলেন, তৌফিক ভূইয়া, স্বপন ভূইয়া, মো. তানজিদ ভূইয়া ও খালেকুজ্জামান ভূইয়া। তৌফিক ভূইয়ার মাথায় মারাত্মক ভাবে জখম হওয়ায় সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা প্রেরণ করেন । সুমন ভূইয়ার ৭ বছরের ছেলে তানজিদ ভূইয়াকে ও  তারা রেহাই দেয়নি। তার মুখে দা দিয়ে আঘাত করলে তার দুটি দাঁত পড়ে যায় এতে তার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়ে মারাত্মক ভাবে আহত হয়।

এ ঘটনায় সদর মডেল থানায় ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ১৫/১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন আহত স্বপনের ভাই মো. মঞ্জু ভূইয়া মামলা নং ০২ তাং. ০৪/০৯/২০১৭ইং। মামলা দায়েরের পর থেকেই আসামিদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন ভুক্তভোগীরা। পাশাপাশি মামলা প্রত্যাহার করে নিতে অনরবত হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন আসামিরা।
মামলার এজহারে বলা হয়, কোড্ডা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার ভূইয়া বাড়ির পাশে বসে মাদক সেবন করে জুয়া খেলেন একই এলাকার বিল্লার মিয়া, মো. রনি, আয়েত আলী, ফিরোজ মিয়া, খলিল মিয়াসহ উল্লেখিত আসামিরা। এতে বাধা দিলে আসামিদের সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয় ভূইয়া বাড়ির লোকজনের। সর্বশেষ গত ৩ সেপ্টেম্বর দুপুরে আসামিদের ভূইয়া বাড়ির সামনে মাদক সেবন ও জুয়া খেলায় বাধা দিলে তারা ক্ষিপ্ত হন। পরে আসামিরা লাঠি-সোটা নিয়ে ভূইয়া বাড়িতে হামলা চালায়। এতে ৪ জন আহত হন। এসময় হামলাকারীরা কয়েকটি ঘর-বাড়িও ভাঙচুর করে। এছাড়া আসামিরা গরু বিক্রির ৬ লাখ টাকাও লুটে নেয়।
আহত স্বপন জানান, আমরা ভাইয়েরা কেউই বাড়িতে থাকি না। ঢাকা থেকে মাঝে-মধ্যে ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে আসি। বাড়িতে আমার স্ত্রী ও বৃদ্ধ মা একা থাকেন। আসামিরা প্রায়ই আমাদের বাড়িতে এসে মাদক সেবন করে জুয়া খেলে। এতে বাধা দিলে আসামিরা আমার মাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। হামলার ঘটনায় মামলা দায়েরের পর থেকেই আমরা আতঙ্কগ্রস্থ। অনবরত মামলা প্রত্যহার করে নেয়ার জন্য আমাদের হুমকি দিচ্ছে আসমিরা।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো:রেজাউল করিম জানান, মামলার এজহার নামীয় ৩ আসামীকে প্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে এবং ১২জন জামিনে আছেন। বর্তমান পরিস্থিতি শান্ত আছে ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares