Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের উত্তর মৌড়াইলে কবরস্থানের জায়গায় অবৈধভাবে বিল্ডিং নির্মাণ ॥ ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা

+100%-

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ৯নং ওয়ার্ডের উত্তর মৌড়াইলে কবরস্থানের জায়গায় অবৈধভাবে জবর দখল করে বিল্ডিং নির্মাণ কাজ আরম্ভ করায় স্থানীয় এলাকাবাসী ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় উল্লেখিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে বলে স্থানীয় এলাকাবাসীদের ধারণা।

সোমবার দুপুরে এ বিষয়ে পৌর বিল্ডিং কোড অমান্য করিয়া এবং ০৯ নং ওয়ার্ডের উত্তর মৌড়াইল পৌর কবরস্থানের জায়গা অবৈধভাবে জবর দখল করিয়া বহুতল বিশিষ্ট বিল্ডিং ও টয়লেট যাহাতে নির্মাণ করিতে না পারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবিরের নিকট উত্তর মৌড়াইল জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি মোঃ কামাল মিয়ার নেতৃত্বে স্থানীয় এলাকাবাসী ও ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিগণের একটি প্রতিনিধি দল একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার ০৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জনৈক বিবাদী মোঃ মিন্টু মিয়া, পিতা- মৃত আব্দুল খালেক পৌরসভার বিল্ডিং কোড অমান্য করিয়া উত্তর মৌড়াইল এলাকার পৌর কবরস্থানের জায়গা অবৈধভাবে জবর দখল করিয়া বহুতল বিশিষ্ট বিল্ডিং নির্মাণ কাজ শুরু করিলে উক্ত বিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী ও কবরস্থানে কমিটির লোকজন বর্ণিত বিবাদী মোঃ মিন্টু মিয়াকে মৌখিকভাবে বারংবার বাধা নিষেধ দেওয়া সত্ত্বেও তিনি কোনরূপ বাধা নিষেধ না মানিয়া সম্পূর্ণ গায়ের জোরে, জোরপূর্বকভাবে কবরস্থানের জায়গা দখল করিয়া তাহার অবৈধ বহুতল বিশিষ্ট বিল্ডিং ও টয়লেট নির্মাণ কাজ করিয়া যাইতেছে এবং তাহার নির্মাণধীন বিল্ডিং এর টয়লেট/ বাথরুম কবরস্থানের জায়গায় নির্মাণ করিয়াছে।

তাহাকে উক্ত বিষয়ে বাধা নিষেধ দিলে সে এলাকাবাসীকে উল্টো মিথ্যা মামলা মোকদ্দমা দিয়া জেরবার করিবে বলিয়া হুমকী ধমকী প্রদান করে। ফলে উক্ত বিষয়াদি নিয়া বর্তমানে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করিতেছে। এমতাবস্থায় বর্ণিত মিন্টু মিয়া যাহাতে কবরস্থানের জায়গায় জবর দখল করিয়া তাহার নিমার্ণ কাজ করিতে না পারে তড়িৎ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আবেদনে উল্লেখ করেন।

অভিযোগপত্র দাখিলকালে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় এলাকাবাসী ও মুসুল্লিদের পক্ষে হাজী মোঃ বাবুল ভূইয়া, আব্দুর রহিম খন্দকার, মোঃ খলিলুর রহমান চৌধুরী, মোঃ আব্দুল হাফেজ, মোঃ হেবজু মিয়া, মোঃ কাজাল মিয়া, মোঃ আবেদ মিয়া, মোঃ সোহরাব মিয়া, শামীম মিয়া প্রমুখ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares