Main Menu

সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা এবং ভিশনঃ ২০২১ এর লক্ষ্য অর্জন বিষয়ে জনগণকে অবহিতকরণ এবং উন্নয়ন কার্যক্রমে জনসম্পৃক্ততার লক্ষ্যে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে আলোচনা সভা, সঙ্গীতানুষ্ঠান এবং চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত

+100%-

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশেষ উদ্যোগ সমূহের ব্র্যান্ডিং , বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য সমূহ (এস ডি জি), ভিশনঃ ২০২১ এর লক্ষ্য ও অর্জনসমূহ এবং সন্ত্রাসও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা, সঙ্গীতানুষ্ঠান এবং চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে জান্নাতুল ফেরদৌস ,উপজেলা নির্বাহী অফিসার,সদর এর সভাপতিত্বে উপস্থিত প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্যে প্রদান করেন জেলা প্রশাসক,ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেজওয়ানুর রহমান,তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন । তাঁর উদ্যোগে যুদ্ধবিধ্বসÍ স্বাধীন বাংলাদেশে ৩৬ হাজার ১৬৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হয়।সে সময় সরকারি শিক্ষকের পদমর্যাদা লাভ করেন দেশের ১লাখ ৫৭ হাজার ৭২৪ জন শিক্ষক।এই ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষা সহায়তা র্কমসূচি বাস্তবায়নের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।যার সুফল লাভ করছে শিক্ষার্থীরা।গত ৬বছরে ২৬,১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হয়েছে ।এ পর্যন্ত ১ লাখ ২০ হাজার শিক্ষকের চাকরি জাতীয়করণ করা হয়েছে।

বিশেষ অতিথি-অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন-আমাদের উন্নয়নকে টেকসই করতে হবে।আর এর জন্য প্রয়োজন দেশপ্রেম।প্রত্যেকে প্রত্যেকের অবস্থান থেকে তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্বটুকু পালন করলে দেশের উন্নয়ন স্থায়ী হবে।দেশপ্রেমহীন কোন কাজই স্থায়ী হয়না।

বিশেষ অতিথি-মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান,সদর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত বলেন- নারীর ক্ষমতায়নের সৃষ্টির জন্য দেশ আজ নিম্ম মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হয়েছে এবং ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হবে।তিনি আরো বলেন শিশু মৃত্যুর হার ও মাতৃমুত্যুর হার হ্রাসে এমডিজি পুরস্কার ২০১০ সালে প্রধানমন্ত্রী অর্জন করেন এবং অর্থনৈতিক সাফল্যসূচক বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

এ সময় স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিতসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। জেলা তথ্য অফিসার, জনাব দীপক চন্দ্র দাস উক্ত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপন করেন এবং বলেন,রুপকল্পের বাংলাদশ একটি অসাম্প্রদায়িক,প্রগতিশীল ও উদার গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের স্বপ্ন। যেখানে নিশ্চিত হবে সামাজিক ন্যায়বিচার , নারীর অধিকার ও সুযোগের সমতা, আয়-ব্যয় ও দারিদ্র্য নেমে আসবে ন্যূনতম পর্যায়ে, সবার জন্য শিক্ষা ও স্বাস্থ্য অধিকার নিশ্চিত হবে, ব্যাপকভাবে বিকশিত হবে মানুষের সৃজনশীলতা ও সক্ষমতা, সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা পাবে, হ্রাস পাবে সামিাজিক বৈষম্য, প্রতিষ্ঠা পাবে জলবায়ুর পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট বিপর্যয় মোকাবেলার সক্ষমতা । তথ্য প্রযুক্তিতে বিকশিত হয়ে সেই বাংলাদশ পরিচিত হবে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, কিছু বিপথগামী ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে নিরীহ মানুষ হত্যা করে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়। যারা এসব বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে তারা প্রকৃত মুসলিম নয়। কেননা মানুষ হত্যা কোন ধর্মই সমর্থন করে না । তিনি বলেন, সরকার সন্ত্রাস ও জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছে। অচিরেই এদেশ থেকে জঙ্গিগোষ্ঠি সমূলে বিতাড়িত হবে। তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের জঙ্গি কার্যক্রম থেকে সতর্ক থাকার পরার্মশ দেন। তিনি এমডিজির সাফল্য ও এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে বিশদ আলোচনা করেন এবং দেশ ও জনগণের স্বার্থে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য পেশ করেন এবং অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক পরিসমাপ্তি ঘোষণা করেন।প্রেস রিলিজ






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares