Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইভটিজিং বাড়ছে, প্রতিবাদ করায় অভিভাবকের উপর হামলায় গ্রেফতার ১ ॥ এক ছাত্র বহিস্কার

+100%-

সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইভটিজিং এর ঘটনা বেড়ে গেছে। প্রতিবাদ করায় উল্টো নাজেহাল হচ্ছেন অভিভাবকরা। ছাত্রীদেরকে উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় বখাটেদের ক্রিকেট ষ্টাম্পের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন ওবায়দুর রহমান নামের এক অভিভাবক । পৌর এলাকার পশ্চিম পাইক পাড়াস্থ বোর্ডিং মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গভর্ণমেন্ট মডেল গার্লস হাই স্কুল ও অনন্দময়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এর ৪ জন ছাত্রী গত ১১ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে স্কুল ছুটির পর অন্নদা বোর্ডিং মাঠের ভেতর দিয়ে বাসায় যাবার পথে বখাটে মোসতাকিন ছাত্রীদের উত্যক্ত (ইভটিজিং) করা শুরু করে। তখন উত্যক্তের শিকার ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীর পিতা মুন্সেফপাড়া নিবাসী ওবায়েদুর রহমান দূর থেকে এ ঘটনা দেখে এগিয়ে গিয়ে এর প্রতিবাদ করে কেন ছাত্রীদের আটক করেছে জিজ্ঞেস করলে বখাটে মোসতাকিন পাল্টা মন্তব্য করে, আপনার কি হয়েছে? আপনি আপনার কাজে যান । এনিয়ে ওবায়েদুর রহমান এর সাথে তর্ক শুরু হলে এক পর্যায়ে মোসতাকিন ও তার বখাটে বন্ধুরা ক্রিকেট ষ্ট্যাম্প সহযোগে হামলা করে ওবায়েদের উপর। বখাটেরা তার মাথাসহ সারা শরীরে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। প্রত্যক্ষদর্শীরা ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনার পর গুরুতর আহত অবস্থায় ওবায়েদকে জেলা সদর হাসপাতালে নিলে তার মাথায় ৪টি সেলাই দেয়া হয়। ডান হাতের হাড্ডি ভেঙ্গেছে বলে জানান চিকিৎসক। বর্তমানে তিনি গুরুতর অসুস্থ ।

এ ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মঈনুর রহমান এর নেতৃত্বে ১নং পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ মোঃ মহিউদ্দিন এর তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ এর কারণে বখাটে দলের নেতা মোসতাকিনকে পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এলাকাবাসী খুবই খুশি মোসতাকিনকে পুলিশ গ্রেফতার করাতে। মোসতাকিন এর যন্ত্রনায় মুন্সেফ পাড়া, ফুলবাড়িয়া এলাকাবাসী অতিষ্ঠ ছিল। এ ব্যাপারে আহত অভিভাবক ওবায়দুর রহমান বাদী হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করতে হিমশিম হতে হয়। পরবর্তীতে এ এসপি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর সার্কেল এর সহযোগিতায় মামলা দায়ের করতে সক্ষম হয়। পুলিশ বখাটে মোসতাকিনকে আদালতে চালান করে। বর্তমানে সে জেল হাজতে রয়েছে।

এছাড়া, কাজীপাড়ার ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন এলাকা হতে সরকারপাড়া ব্যাপারীপাড়া পর্যন্ত সড়কে বখাটেদের উৎপাত অব্যাহত রয়েছে । যার ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার ক্লাশ ছুটির পর নিয়াজ মোহাম্মদ হাই স্কুলের দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী বাসায় ফেরার পথে ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন সড়ক অতিক্রম কালে কাজিপাড়া দরগা মহল্লার মৃত সেলিম মিয়ার ছেলে মেরাজ নামক বখাটে এই ছাত্রীর নাম জানতে চায় । কিন্তু সে নিরবতা পালন করে পাশ কাটিয়ে চলে যাবার চেষ্টা করলে উক্ত বখাটে ঐ ছাত্রীর হাত থেকে বই খাতা কেড়ে নিয়ে পঙ্খীরাজ নামক ব্যাটারী চালিত যানবাহনে উঠে পালিয়ে যাবার কালে সরকারপাড়ায় ছাত্রীর পিতা ঐ বখাটেকে আটক করে বইখাতা উদ্ধার করলেও কৌশলে এক ব্যক্তি ঐ বখাটেকে মোটর সাইকেলে তুলে পালিয়ে যায় ।

এদিকে সম্প্রতি আখাউড়ায় এক স্কুল ছাত্রীকে উত্যক্ত করার দায়ে এক ছাত্র বহিস্কার করেছে কর্তৃপক্ষ।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares