Main Menu

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সন্তানেরা ভাষা আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে: মোকতাদির চৌধুরী এমপি

+100%-

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিথ সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও জেলা আওয়মীলীগের সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, আজকের প্রজন্মই আগামী দিনে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিবে, তাই আজকের প্রজন্মকে শুধু শিক্ষিতই নয়, ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তিনি গতকাল শনিবার বিকেলে স্থানীয় সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ২০১৪, ২০১৫ এবং ২০১৬ সালের এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবী শিক্ষার্থীদের মদ্যে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অথিতির বক্তব্যে একথা বলেন।

জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অথিতির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী আরো বলেন, আমরা আলোকিত ব্রাহ্মণবাড়িয়া চাই, সেজন্যই কাজ করছি। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা চাই একদিন তোমদের মধ্য থেকেই একজন বিচারপতি, ডাক্তার, আইজিপি, কেবিনেট সচিব, ইঞ্জিনিয়ার হয়ে আসুক। তিনি বলেন, আমরা চাই তোমরা নিজেরা নিজেদেরকে সমাজে সু-প্রতিষ্ঠিত করে পরিবারের মুখ উজ্জল করবে, সমাজের মুখ উজ্জল করবে, ব্রাহ্মবাড়িয়ার মুখ উজ্জল করবে। তোমরা তোমাদেরকে উচ্চতর স্থানে নিয়ে যাবে যাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী তোমাদেরকে নিয়ে অহংকার করে। তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনেক জ্ঞানী, গুনি মানুষের অন্মস্থান। কবি সুফিয়া কামালের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। বিশ্বখ্যাত সুর সম্রাট আলাউদ্দিন খাঁ’র বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া। জাতীয় বীর আবদুল কুদ্দুস মাখনের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তার রয়েছে বিশাল অবদান। এছাড়াও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অ্যাডভোকেট আলী আজম ভূইয়া, আ্যাডভোকেট সিরাজুল হকের অবস্থান। অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক সংবিধান প্রনেতাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত, ব্যারিষ্টার আবদুর রসুলের মত ব্যক্তিরা জন্মগ্রহণ করেছিলেন। মোকতাদির এমপি আরো বলেন, আমি মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম। জাতির জন্য কিছু করার সুযোগ পেয়েছিলাম। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের মধ্যে অবস্থান করার সুযোগ পেয়েছি। তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সন্তানেরা ভাষা আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছে। কিন্তু আমাদের আগের অবস্থান বর্তমানে নেই। আমাদের অযোগ্যতার কারণে আমারা পিছু হটেছি। আমাদের শুন্যতা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফাউন্ডেশন পূরণ করার জন্য এগিয়ে এসেছে। আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানাই। তিনি আগামী প্রজন্মকে সু-শিক্ষিত, দেশপ্রেমিক ও ভালো মানুষ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার আহবান জানান। অনুষ্ঠানে তিনি মোকতাদির-ফাহিমা কল্যাণ ট্রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে দুই লক্ষ টাকা অনুদানের ঘোষণা দেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অথিতির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান পিপিএম, ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র মো. ফেরদৌস মিয়া, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রসাশক আসাদুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফরিদা নাজমীন, কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে জান্নাতুল নাঈমা ও শাহীনুল ইসলাম। অনুষ্ঠনা পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার ফিরোজা পারভীন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*

Shares